চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

রংপুরে হামলার অন্যতম হোতা সৈকত ও রবিউল টঙ্গী থেকে আটক

রংপুরের পীরগঞ্জে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্টের উদ্দেশ্যে হামলা ও অগ্নিসংযোগ ঘটনার অন্যতম হোতা কথিত সৈকত মণ্ডল ও রবিউল ইসলামকে টঙ্গী থেকে আটক করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন।

শনিবার বেলা সাড়ে ১১টায় কারওয়ান বাজার র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলন করে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে বলে জানা গেছে।

র‌্যাব সদর দপ্তর থেকে পাঠানো এক বার্তায় বলা হয়, ‘সাম্প্রতিক সময়ে রংপুরের পীরগঞ্জে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করার উদ্দেশে হামলা ও অগ্নিসংযোগের ঘটনার অন্যতম হোতা সৈকত মণ্ডল ও সহযোগী রবিউল ইসলামকে গাজীপুরের টঙ্গী থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।’

বিজ্ঞাপন

এর আগে ২০ অক্টোবর বুধবার হামলার ওই ঘটনায় উজ্জ্বল হাসান (২১) ও আল আমিন (২২) নামের দুই তরুণকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষ বাড়াতে ফেসবুকে পোস্ট করে হিন্দুপল্লীতে হামলার আগে উগ্রবাদীদের উত্তেজিত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই দুজনের বিরুদ্ধে নতুন করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে আরেকটি মামলা দায়ের করেছে পুলিশ।

এ ছাড়াও অন্য আরেকটি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলার আসামি ফেসবুকে ধর্ম অবমাননাকর অভিযোগে অভিযুক্ত পরিতোষ সরকারকে সোমবার (১৮ অক্টোবর) রাতে জয়পুরহাট জেলা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। বর্তমানে তিনি কারাগারে রয়েছেন।‌ এর আগে মঙ্গলবার আদালতে ১৬৪ ধারায় দেওয়া জবানবন্দিতে ফেসবুকে উস্কানিমূলক মন্তব্যের বিষয়টি স্বীকার করেন পরিতোষ।

গত ১৭ অক্টোবর রোববার  রাতে ফেসবুকে ইসলাম ধর্মের কথিত অবমাননার অভিযোগ তুলে পীরগঞ্জের রামনাথপুর ইউনিয়নে হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়িঘরে হামলা, ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করে উগ্রবাদীরা। এ ঘটনায় গ্রামটির ১৫টি পরিবারের ২১টি বাড়ির সবকিছু আগুনে পুড়ে গেছে। সব মিলিয়ে অন্তত ৫০টি বাড়িতে ভাঙচুর ও লুটপাট করা হয়েছে। হামলাকারীরা গরু-ছাগল, অলঙ্কার, নগদ টাকাও নিয়ে গেছেন বলে দাবি ক্ষতিগ্রস্তদের। এ ঘটনায় পীরগঞ্জ থানায় পুলিশের পক্ষ থেকে করা তিনটি মামলায় এ পর্যন্ত ৫৩ জন গ্রেপ্তার হয়েছেন।

বিজ্ঞাপন