চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

যে কারণে ‘নোলক’-এর শুটিং রামুজি ফিল্ম সিটিতে

তারকা অভিনেতা শাকিব খান অভিনীত একেবারে দেশীয় সিনেমা ‘নোলক’ এখন আলোচনায়। টানা পঁচিশ দিন ভারতে শুটিং শেষে প্রথম লটের কাজ শেষ হয়েছে বলে জানিয়েছেন ছবির নির্মাতা রাশেদ রাহা। এরমধ্যে নির্মাতা জানালেন যে কারণে ‘নোলক’-এর শুটিং ঢাকায় না করে পুরো টিমসহ যেতে হল হায়দরাবাদে।

টানা ২৫দিন শুটিং করে নোলক-এর প্রথম লটের কাজ শেষ করেছেন নির্মাতা। মঙ্গলবার এমনটাই জানিয়েছিলেন রাশেদ রাহা। আর এবার জানালেন, কেন বাংলাদেশে ছবির শুটিং না করে তারা বেছে নিলেন ভারতের বিখ্যাত রামুজি ফিল্ম সিটি। ছবির গল্প কি ভিনদেশ ডিমান্ড করে, নাকি নিজেদের সুবিধার জন্য গেলেন রামুজিতে?

Advertisement

প্রথমে নোলক-এর শুটিং আমরা ঢাকা এবং এর আশে পাশেই করতে চেয়েছিলাম। কারণ নোলক ছবিটি ওয়াইড ফ্রেম, গল্প, সেট অনুযায়ি লোকেশন ডিমান্ড করে। ঢাকার আশে পাশে লোকেশন খুঁজেও পেলাম, কিন্তু একটু সমস্যাও তৈরি হল। কারণ, একটা লোকেশন থেকে আরেকটা লোকেশনের দূরত্ব ছিলো খুব বেশী। আর এ কারণেই আমরা রামুজি ফিল্ম সিটিকে বেছে নেই। আর আমরা আমাদের পরিকল্পনা মতোই সুন্দরভাবে শুটিং শেষ করতে পেরেছি। -রামুজি ফিল্ম সিটিতে নোলক-এর শুটিং নিয়ে বলছিলেন রাশেদ রাহা।

এরইমধ্যে সত্তুর শতাং কাজ সম্পন্ন হয়েছে জানিয়ে নির্মাতা আরো জানান, সবাই যদিও মনে করছেন আমরা এ মাসেই নোলক-এর কাজ শেষ করছি। কিন্তু নোলক-এর এই জার্নিটা আমরা শুরু করেছিলাম এ বছরের ৫ আগস্ট থেকে। এরইমধ্যে আমরা নোলক-এর ৭০ পার্সেন্ট কাজ সম্পন্ন করে ফেলেছি। তার আগে আমরা গল্প, চিত্রনাট্য, কাস্টিং, ক্রু এবং লোকেশন নিয়ে কাজ করেছি। এরজন্য সিনেমার প্রডিউসার টিম, ডিরেক্টোরিয়াল টিম, সিনেমাটোগ্রাফি টিম, আর্ট ডিপার্টেমেন্ট এবং ছবিতে যারা অভিনয় করেছেন প্রত্যেকের প্রতি কৃতজ্ঞ ও ভালোবাস।

কমার্শিয়াল ধারায় বাংলাদেশী দর্শকদের জন্য নতুন কিছু নিয়ে আসছেন বলেও জানান রাশেদ রাহা। ছবিতে শাকিব খানের বিপরীতে নায়িকা হিসেবে দেখা যাবে চিত্রনায়িকা ববিকে।