চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মোদির পদত্যাগ চেয়ে দেয়া পোস্টগুলো ব্লক করে ফিরিয়ে দিলো ফেসবুক

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ভারতের ব্যবহারকারীদের #ResignModi ব্যবহার করে দেয়া পোস্টগুলো ব্লক করে দিয়েছে। কয়েক ঘণ্টা পরে অবশ্য পোস্টগুলো আনব্লক করেছে ফেসবুক।

ফেসবুক কর্তৃপক্ষ অবশ্য দাবি করেছে, কারো অনুরোধে তারা পোস্ট ব্লক করেনি। ভারতীয় ফেসবুক ব্যবহারকারীদের অভিযোগ মোদি সরকারের অনুরোধে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ পোস্টগুলো ব্লক করেছিলো। ভারতে করোনা পরিস্থিতি যখন নিয়ন্ত্রণের বাইরে, প্রতিদিন লাখো মানুষ করোনা সংক্রমিত হচ্ছে, মারা যাচ্ছে তিন হাজারের বেশী, সে সময়ে মোদিবিরোধী প্রচারণা দমনে সরকারের অনুরোধে ফেসবুক এ কাজ করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

ফেসবুক জানিয়েছে, ওই হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করে দেয়া পোস্টগুলো ভুল করে ব্লক করা হয়েছে। ভারত সরকার এ সংক্রান্ত অনুরোধ তাদেরকে করেনি। পোস্ট ব্লক করার বিষয়ে অবশ্য ফেসবুক আর কোন ব্যাখ্যা দেয়নি।

বিজ্ঞাপন

ফেসবুক সাধারণত কিছুদিন পরপর নানান কারণে কিছু হ্যাশট্যাগ ব্লক করে থাকে। কিছু হ্যাশট্যাগ ব্লক করে ম্যানুয়ালী। আবার ইন্টারনাল গাইডলাইন বা প্রতিষ্ঠানের অভ্যন্তরীণ নীতিমালার ভিত্তিতে এ কাজ করা হয়। ফেসবুক কর্তৃপক্ষ বলছে, পোস্টগুলোর ধরণ বা বিষয় দেখে ব্লক করা হয়েছিলো, হ্যাশট্যাগের কারণে নয়।

কয়েক ঘণ্টার এই পোস্ট ব্লক এমন সময়ে করা হয়েছে যখন ভারতের কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ রাজ্যে নির্বাচন চলছে।

এবছরের ভারত সরকার নতুন নিয়ম চালু করেছে যে, বেআইনী কোন বিষয়ে ফেসবুক বা টুইটারে পোস্ট দিলে দ্রুত সেগুলো নামিয়ে ফেলা হবে। বিশ্বের বৃহত্তম গণতন্ত্রের দেশে এই ধরণের নিষেধাজ্ঞা বাকস্বাধীনতার উপর হস্তক্ষেপ বলেই সাধারণ মানুষ বিবেচনা করছে।

গত কয়েক সপ্তাহে করোনা সংক্রমণের ঢেউ দেশটিকে কাহিল করে ফেলেছে। হাসপাতালগুলোতে বেড খালি নেই। দেখা দিয়েছে অক্সিজেন ও ওষুধের ঘাটতি। প্রতি দিন তিন হাজারের বেশী মানুষ মারা যাচ্ছে। শশ্মানে বা গোরস্তানে কবরের জায়গা মিলছে না। মানুষ সামাজিক মাধ্যমে তাদের অসহায়ত্ব প্রকাশ করে সহায়তা কামনা করছে। পাশাপাশি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সরকারের গাফিলতির কথাও বলছে ক্ষুব্ধ মানুষ।

বিজ্ঞাপন