চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মিশন এক্সট্রিমে শুটিংয়ের অভিজ্ঞতা জানালেন ঐশী

‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ খ্যাত তারকা জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী চলচ্চিত্রের কাজ করছেন। এই তারকা প্রথমবারের মতো যে চলচ্চিত্রে কাজ করছেন তার নাম ‘মিশন এক্সট্রিম’। আলোচিত ‘ঢাকা অ্যাটাক’ ছবির সিক্যুয়ালে নির্মাণ হওয়া ওই ছবিতে ঐশীর নায়ক আরিফিন শুভ।

বিশ্ব সুন্দরী প্রতিযোগিতার মঞ্চে বাংলাদেশের প্রতিনিধি হয়ে শীর্ষদের সঙ্গে লড়াই করা ঐশী জানালেন ‘মিশন এক্সট্রিম’ ছবিতে তার কাজের অভিজ্ঞতা।

বিজ্ঞাপন

চ্যানেল আই অনলাইনকে ঐশী বলেন, ‘২০ মার্চ থেকে শুটিং হলেও পরদিন আমি শুটিংয়ে অংশ নেই। ছবির টিম কাজের দিক থেকে আমার ভীষণ সাপোর্ট দিচ্ছেন। যেহেতু আমি নতুন, তাই তারা হাতেকলমে আমাকে বুঝিয়ে দিচ্ছেন। বিশেষ করে শুভ ভাইয়া অনেক সাহায্য করছেন। আমাকে বোঝানোর জন্য তিনি নিজেও কষ্ট করছেন। যখন ভালো করি তখন সবাই উৎসাহ দেন’।

প্রথমবার ক্যামেরার সামনে দাঁড়ানোর অভিজ্ঞতা কেমন ছিল, জানতে চাইলে ঐশী বলেন, ‘প্রথমদিন শুটিংয়ের আগে মেকআপ নেয়ার সময় অনেক এক্সাইটেড ছিলাম। তারপর ক্যামেরার সামনে গিয়েই নার্ভাস হয়ে যাই। কিংকর্তব্যবিমূড় হয়ে যাই। ক্যামেরার অ্যাংগেল বুঝে উঠতে কষ্ট হচ্ছিল। এক্সপ্রেশন কতটুকু কীভাবে দিতে হবে, তাও বুঝে উঠতে পারছিলাম না। এর আগে শুধু একটি বিজ্ঞাপনে ও মিউজিক ভিডিওতে কাজ করেছি। কিন্তু বিজ্ঞাপন-মিউজিক ভিডিও আর সিনেমা, তিনটি আলাদা জিনিস। পরে রাজদিপ দাদা, সানী সানোয়ার ভাইয়া, শুভ ভাইয়া সবাই মিলে আমাকে সাহায্য করেছেন’।

‘প্রথমদিন সবাই মনে করেছিল আমাকে অনেকগুলো টেক নিতে হবে। হয়তো আমি বুঝবো না! কিন্তু মোটেও এমন হয়নি। প্রথমদিনের পারফর্মেন্সে সবাই খুশি হয়েছিল। এখন পর্যন্ত সবাই টিমের সবাই বলছে ভালো করছি। আমি নিজেও চেষ্টা করে যাচ্ছি। মাঝেমধ্যে দ্বিধায় পড়ে যাই! কী করলাম না করলাম! আদৌও হচ্ছে কিনা! এভাবেই আমি পাঁচদিনের মতো শুটিং করেছি। বেশিরভাগই শুভ ভাইয়ের সঙ্গে দৃশ্য ছিল।

ঐশী আরও জানান, তিনি যে কদিন শুটিং করেছেন উত্তরা আর সাভার এলাকায় শুটিং হয়েছে। একজন আত্মনির্ভর ও কর্মজীবী মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করছেন। তার চরিত্রটি অনেক চ্যালেঞ্জিং এবং শক্তিশালী।

হাইভোল্টেজ ঢাকা অ্যাটাকের সাফল্যের পর ‘মিশন এক্সট্রিম’ নির্মাণ করছেন নবীন নির্মাতা ফয়সাল আহমেদ। তিনি ‘ঢাকা অ্যাটাক’ ছবির প্রধান সহকারী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। এবার তার সঙ্গে যৌথভাবে নির্মাণে এসেছেন পুলিশের স্পেশাল ফোর্সের কর্মকর্তা সানী সানোয়ার। আরিফিন শুভ-ঐশী ছাড়া ‘মিশন এক্সট্রিম’ ছবির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করবেন তাসকিন রহমান, এবিএম সুমন, সামস সুমন, আরেফ প্রমুখ।

‘মিশন এক্সট্রিম’ পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের তথা ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কিছু শ্বাসরুদ্ধকর অভিযান থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে নির্মাণ করা হবে। ছবিটি প্রযোজনা করছে কপ ক্রিয়েশন, এক্সিকিউটিভ প্রযোজক জাহিদ হাসান অভি। ঢাকার অংশের কাজ শেষে মে থেকে কয়েকটি দেশে ‘মিশন এক্সট্রিম’ ছবির শুটিংয়ের কথা আছে। এছাড়া ছবির জন্য দু’জন ডিওপি, আর্ট ও অ্যাসোসিয়েট ডিরেক্টর সবাই থাকছেন ভারতীয়। আগামী ঈদুল আযহায় ‘মিশন এক্সট্রিম’ মুক্তি দেয়া হবে বলে আশা করছেন প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান।

 

Bellow Post-Green View