চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মাশরাফীদের সামনে সাকিবদের ১৮৩

ইনিংসের প্রথম ভাগটা ভালোই বোলিং ছিল রংপুরের। কম খরুচে বোলিংয়ের পাশাপাশি উইকেট নিয়ে ঢাকাকে চাপে রেখেছিলেন মাশরাফী-গাজীরা। কিন্তু পরের ভাগে পোলার্ড-রাসেলরা হাত খুললে ১৮৪ রানের বড় লক্ষ্যের সামনেই পড়তে হল রাইডার্সদের।

শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে দিনের প্রথম ম্যাচে টস হেরে ব্যাটিংয়ে এসে নির্ধারিত ওভারে ৯ উইকেটে ১৮৩ রানের সংগ্রহ গড়েছে ঢাকা ডায়নামাইটস।

শুক্রবার রংপুর রাইডার্স অধিনায়ক মাশরাফী শুরুতে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন। ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠার আগেই মারকুটে হযরতউল্লাহ জাজাইকে (১) সাজঘরে পাঠিয়ে তাকে স্বস্তি নেন সোহাগ গাজী।

অন্যপ্রান্তে মাশরাফীও কম যান না। ৪ ওভারে মাত্র ২২ রান খরচের দিনে যে একটি উইকেট তুলে নিয়েছেন, সেটি প্রতিপক্ষের আরেক ওপেনার সুনিল নারিনের। আইপিএল-সূত্রে ওপেনার বনে যাওয়া এ ক্যারিবীয়ান করতে পেরেছেন মাত্র ৮ রান।

Advertisement

খানিক পর ২ চার ও এক ছয়ে ৮ বলে ১৮ করা রনি তালুকদারকেও সাজঘরে পাঠান সোহাগ গাজী। ধারাবাহিকতায় ১২ বলে ১৫ করা মিজানুর রহমানকে এলবি করে পরিস্থিতি আরও পক্ষে আনেন হওয়েল।

এরপরই দৃশ্যপটের পরিবর্তন। একপাশে সাকিব দেখেশুনে, অন্যপাশে পোলার্ড উড়িয়ে-জুড়িয়ে মন খেলতে থাকেন। দুজনে ৪৫ বলে ৭৮ রান যোগ করেন। কাইরেন পোলার্ডের বিদায়ে ভাঙে জুটি। ৫ চার ও ৪ ছক্কায় ঝড় তুলে ২৬ বলে ৬২ করে যান এই ক্যারিবিয়ান।

সাকিব ফেরেন তার খানিক পরই। ৪ চারে ৩৭ বলে ৩৬ রানে।

তাতেও বিপদ কাটেনি রংপুরের। আরেক মারকুটে আন্দ্রে রাসেল তখনও ক্রিজে। রাসেলই লক্ষ্যটা টেনে পৌনে দুইশ পার করেন। শফিউলের বলে বোল্ড হওয়ার আগে চারহীন ইনিংসে ৩ ছয়ে ১৩ বলে ২৩ করে যান।

রাইডার্সদের হয়ে ২টি করে উইকেট নেন বেনি হাওয়েল ও সোহাগ গাজী। একটি করে উইকেট গেছে মাশরাফী, ফরহাদ রেজার দখলে। শফিউল ইসলাম নিয়েছেন ৩ উইকেট।