চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

মাশরাফির ভালো লাগছে, মাবিয়ারা অনুপ্রাণিত

কয়েক বছরে দেশের জন্য অনেক সুনাম বয়ে এনেছেন ক্রিকেটাররা। সাফল্য এনে মাশরাফি-মুশফিকরা সম্মানিত হন হরহামেশাই। হাতে ওঠে পুরস্কার। ক্রিকেটের মত সাফল্য আসতে শুরু করেছে অন্য অঙ্গনের খেলাগুলোতেও। তাইতো কেবল ক্রিকেটারদেরই নয়, সাঁতারু মাহফুজা খাতুন শিলা, ভারোত্তোলক মাবিয়া আক্তার সীমান্ত এবং শুটার শাকিল আহমেদসহ ৩৩৯ জন কৃতি ক্রীড়াবিদকে একই কাতারে আনলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সাফল্যের স্বীকৃতিতে রোববার সন্ধ্যায় তাদের জন্য সংবর্ধনার আয়োজন করেন প্রধানমন্ত্রী। পরে মাশরাফি-মুশফিক ও মাবিয়া-শিলারা জানালেন, ভালো লাগার কথা।

গত বছরের সেপ্টেম্বর থেকে চলতি বছরের মার্চ। এই ৬ মাসে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে যে সকল ক্রীড়াবিদ সাফল্য বয়ে এনেছেন, বাংলাদেশের পতাকা তুলে ধরেছেন বিশ্বমঞ্চে; সন্ধ্যা সাতটায় সরকারি বাসভবন গণভবনে জমকালো আয়োজনে তাদেরকেই পুরস্কৃত করলেন প্রধানমন্ত্রী।

হ্যান্ডবল, সাঁতার, হকি, ক্রিকেট, শুটিং, ব্যাডমিন্টন, ভারোত্তোলন, ভলিবল, ফুটবল, গলফ, আর্চারি, স্পেশাল অলিম্পিক, দাবা, রোলার স্কেটিং, বধির খেলোয়াড়সহ মোট ১৫টি নারী-পুরুষ এবং বয়সভিত্তিক ক্যাটাগরিতে পুরস্কার দেওয়া হয়। সবাইকে তুলে দেয়া হয় এক লক্ষ টাকার চেক।

বড় সাফল্য পাওয়া তিন অ্যাথলেট সাঁতারু মাহফুজা খাতুন শিলা, ভারোত্তোলক মাবিয়া আক্তার সীমান্ত এবং শুটার শাকিল আহমেদকে তুলে দেয়া হয় ফ্ল্যাটের চাবিও। এসএ গেমসে সোনা জয়ের পর শিলা-মাবিয়াদের ফ্ল্যাট দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন ক্রীড়াপ্রেমী হিসেবে পরিচিত প্রধানমন্ত্রী।

বিজ্ঞাপন

সংবর্ধনা নিয়ে টাইগারদের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা বললেন, ‘শুধু ক্রিকেট নয়, অন্যান্য ইভেন্টের খেলোয়াড়রা পুরস্কার পাওয়ায় বেশি ভালো লাগছে। ক্রীড়াঙ্গনের সবাইকে সম্মান দেয়া হয়েছে। সরকার যেন এটা অব্যাহত রাখে।’

টেস্ট অধিনায়ক মুশফিকের কণ্ঠেও ঝরল একই সুর, ‘ক্রিকেটারদের পাশাপাশি অন্যদের পুরস্কৃত হতে দেখাটা ভালো অনুভূতি। সবাই এক সাথে মিলিত হতে পারাটাও অনেক আনন্দের।’

এসএ গেমসে স্বর্ণজয়ী সাঁতারু শিলা বললেন, ‘স্বর্ণ জয়ের পর আমরা যে প্রতিশ্রুতি পেয়েছিলাম তার চেয়ে অনেক বেশি পেয়েছি। এটি আমাদের ভবিষ্যতে আরও ভাল করতে অনুপ্রাণিত করবে।’

ভারোত্তোলক সীমান্তের কথাতেও একই প্রতিধ্বনি। সাউথ এশিয়ান গেমসেই স্বর্ণজয়ী এই তারকা বললেন, ‘ভালো লাগছে। প্রধানমন্ত্রীর হাত থেকে পুরস্কার নিতে পেরে দারুণ লাগছে। যে সম্মান পেয়েছি তা ধরে রেখে সামনে আরো ভালো করতে চাই।’

হকির উন্নয়নে দিতে চাওয়া বিসিবি’র ঘোষিত এক কোটি টাকার চেকও এদিন প্রধানমন্ত্রীর মাধ্যমে তুলে দেয়া হয় ফেডারেশনটির কর্তাদের হাতে।

বিজ্ঞাপন