চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ভূলুণ্ঠিত মানবিক আচরণ

বনের পশু শিকার করে খাওয়া মানব সভ্যতার আদিম প্রবৃত্তি। কিন্তু অকারণে বিভৎস ও নৃশংসভাবে প্রাণী হত্যা একটি জঘণ্য নিকৃষ্ট আচরণ। মানুষ হাসতে হাসতেই আজকাল এইসব নিকৃষ্ট আচরণ করে যাচ্ছে তার চারিদিকের সবার সঙ্গে। এখন নিরীহ বনের প্রাণীও রক্ষা পাচ্ছে না মানুষের এইসব নষ্টামি থেকে।

ভারতের দক্ষিণাঞ্চলের রাজ্য উত্তর কেরালার মালাপ্পুরম জেলায় একটি অন্তঃসত্ত্বা হাতিকে বিস্ফোরক ভরা আনারস খাইয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছে। হাতিটির এমন মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তীব্র সমালোচনা তৈরি হয়েছে। হাতি খুনের ঘটনায় মামলা করা হয়েছে। মোহন কৃষ্ণান নামে বন বিভাগের র‍্যাপিড রেসপন্স টিমের একজন ফরেস্ট অফিসার ঘটনাটি নিয়ে ফেসবুকে আবেগঘন পোস্ট দেয়ার পর এই ঘটনা সম্পর্কে জানতে পারে মানুষ। তিন দিন পানিতে দাঁড়িয়ে মৃত্যুর অপেক্ষা করা অন্তঃসত্ত্বা হাতিটি গত ২৭ মে নদীতে দাঁড়িয়ে থাকা অবস্থাতেই মারা যায়। তার মরদেহ ময়নাতদন্তের পর জানা যায় যে হাতিটি অন্তঃসত্ত্বা ছিল।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

এই বীভৎস ঘটনাটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্ষোভের জন্ম দিয়েছে। হাজারে হাজারে মানুষ দোষীদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে। টুইটারে বন্য প্রাণীর বিরুদ্ধে এমন নিষ্ঠুর জঘন্য কাজের প্রতিবাদে একের পর এক স্কেচ এবং ছবি শেয়ার করেছেন মানুষ। ছবি শেয়ার করে একজন টুইটার ব্যবহারকারী লিখেছেন-স্বাক্ষরতার হার শিক্ষার প্রতিফলন ঘটায় না। বাচ্চার সঙ্গে মা হাতির কল্পিত একটি ছবি শেয়ার করে একজন লিখেছেন- ঈশ্বরের নিজস্ব দেশেই কোথাও…. তবে কেরালায় নয়। ঘটনার প্রতিবাদে বলিউডের শিল্পীরাও তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। আমাদের দেশেও এধরণের ঘটনা দেখতে পাওয়া যায় গণমাধ্যমসহ সামাজিক মাধ্যমে। বিষয়টি খুবই ঘৃণিত।

বিজ্ঞাপন

এত মহামারী এত দুর্যোগ এত শত বিপন্নতার ভেতরও মানুষ এখনও তার নামের প্রতি সুবিচার করতে পারছে না। নিজেদের উন্নত প্রাণী ভাবা মানবকূল আদতেই কতটা শ্রেষ্ঠ জীব, তা ভাবার সময় এসেছে। নিজেদের ভেতর মানুষ হানাহানি মারামারি করছে সেই সভ্যতার আদি পর্ব থেকে। খাদ্যের জন্য পশু হত্যা করছে। কিন্তু এখন এই সভ্যতার চরম উৎকর্ষতার যুগে মানুষকে ভাবতে হবে তারা কতটা মানুষ।

সকল প্রাণীকূলে বাস যোগ্য পৃথিবীতে কী শুধু মানুষই থাকবে? তাহলে এই পৃথিবী টিকে থাকবে? অবশ্যই না। ফলে মানুষকে এখন প্রকৃত মানুষ হয়ে নিজের নামের মর্যাদা রক্ষা করতে হবে। আমরা চাই এই ধরণের বীভৎসতার অবসান হোক। মানুষ প্রকৃত মানুষ হয়ে উঠুক। জগতের সকল মানুষ ফিরে পাক তার গৌরবোজ্জ্জ্বল আত্ম পরিচয়। যে মানুষ নামের পৃথিবী হয়ে উঠবে আরও মানবিক কল্যাণকর।