চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘মঙ্গলগ্রহের কেউ এলেও টের পাবে, রিয়াল ভিএআরের সাহায্য পাচ্ছে’

বার্সেলোনা ইতিহাসের সবচেয়ে সোনালী সময়ে ক্লাবের প্রেসিডেন্ট পদে ছিলেন হুয়ান লাপোর্তা। দুইবার চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি এনে দেওয়া লাপোর্তা ক্লাবটির প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে একজন শক্ত প্রার্থী। তার জনসমর্থনও বেশ জোরালো।

নিজেদের ইতিহাসে সবচেয়ে খারাপ সময় পার করতে থাকা কাতালান ক্লাবটিতে আবারও সোনালী সময় ফিরিয়ে আনার প্রতিশ্রুতির পাশাপাশি তিনি সমালোচনা করেছেন চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদেরও।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

২০০৩ থেকে ২০১০ পর্যন্ত এক মেয়াদে বার্সার দায়িত্বে ছিলেন লাপোর্তা। তার সময়ে ফ্রাঙ্ক রাইকার্ড ও পেপ গার্দিওলার কোচিংয়ে রিয়ালের উপর নিয়মিত ছড়ি ঘোরাতেন রোনালদিনহো, লিওনেল মেসিরা।

২০১৫ সালে জোসেপ মারিয়া বার্তেমেউ প্রেসিডেন্ট হয়ে আসার পর নিজেদের সামর্থ্য হারাতে থাকে বার্সা, ২০১৬ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত টানা তিন চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতে নেয় রিয়াল। মেসির সামর্থ্যকে কাজে লাগাতে না পারায় ২০১৫ সালের পর কাতালান ক্লাবটি চ্যাম্পিয়ন্স জিততে পারেনি বলে মনে করেন লাপোর্তা।

‘মেসির মত বিশ্বসেরা ফুটবলার থাকার পরও আমরা অনেক চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতার সুযোগ হারিয়েছি’, মার্কাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এমনটাই বলেছেন লাপোর্তা।

বিজ্ঞাপন

‘‘আমাদের অনেক চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতা উচিৎ ছিলো, আশা করি আমরা আবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিততে পারবো। আমার সময় কিন্তু রিয়াল কিছুই জিততে পারতো না।’’

গত মৌসুমে বার্সাকে টপকে লা লিগা শিরোপা জিতে নেয় রিয়াল। রিয়ালের সাফল্যের পেছনে ভিএআর প্রযুক্তির সহায়তা আছে বলেও দাবী তার।

‘‘যদি মঙ্গলগ্রহ থেকেও কেউ নেমে আসে আর তাকে ভিএআর দেখতে দেওয়া হয় তাহলে সেও বুঝতে পারবে রিয়াল এর সাহায্য পাচ্ছে।’’

আবারও বার্সার দায়িত্ব পেলে মেসিকে ধরে রাখতে পারবেন বলে আশা প্রকাশ করেছেন লাপোর্তা। ৩০ জুন বার্সার সঙ্গে বর্তমান চুক্তির মেয়াদ ফুরাবে আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ডের, ‘আমার কাছে বিষয়টা ইতিবাচকই মনে হচ্ছে কারণ সে মৌসুমের শেষ পর্যন্ত সময় চেয়েছে। আর এতে আমরা তাকে ব্যক্তিগতভাবে বোঝানোর সময় পাবো।’

‘‘আমার একটা সুবিধা হচ্ছে আমার কাছে লিওর একটা ঋণ আছে। সে সবসময় বলে এসেছে যে তাকে আমি যে কথা দিয়েছি সে কথা রেখেছি। আমি কথা দিলে কথা রাখি।’’