চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বিশ্বকাপের চেয়ে অ্যাশেজই এগিয়ে: রুট

দুদিন আগেই প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ জিতেছে ইংল্যান্ড। ১৯৬৬তে ফুটবল বিশ্বকাপ জেতার পর দ্বিতীয়বার ব্রিটেনজুড়ে চলছে আনন্দ। শিরোপা জিতে খুশি হলেও ইংলিশদের টেস্ট অধিনায়ক জো রুট বলছেন, বিশ্বকাপ বড়, তবে আসন্ন অ্যাশেজ এখনো তার চেয়ে বড়।

রুট না বললেও বোঝা যায়, ইংল্যান্ডের কাছে অ্যাশেজ কত বড়। বিশ্বকাপ জেতার দুদিন পেরিয়ে গেছে, কিন্তু এখনো লন্ডনের রাজপথে ছাদখোলা বাসে সেলিব্রেশন হয়নি মরগান-রুটদের। ক্রিকেট ইতিহাসের এটাই তাদের সবচেয়ে বড় সাফল্য।

বিজ্ঞাপন

অথচ ২০০৫ অ্যাশেজ জেতার পর অ্যান্ডু ফ্লিনটফরা ছাদখোলা বাসে লন্ডনের রাজপথে সেলিব্রেশন। তখন রানী কর্তৃক বাকিংহাম প্যালেসের অভ্যর্থনায় সমগ্র স্কোয়াডকে ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের সদস্য উপাধি দেয়া হয়।

১ আগস্ট থেকে শুরু হচ্ছে অ্যাশেজ সিরিজ। রুট বলেন, ‘সিরিজটি নিশ্চিত করার জন্য আমরা প্রস্তুত। এটি (অ্যাশেজ) সবসময়ই বিশেষ। দুই সপ্তাহের মধ্যে শুরু হচ্ছে। এটা যেভাবে আবহ তৈরি করে; লোকেরা উত্তেজিত হয়। এটা টেস্ট ক্রিকেটের অন্যকোনো সিরিজের মতো নয়। আমি সত্যিই এর জন্য উন্মুখ। এটি বিশাল কিছু। বিশেষত ইতিহাসের কারণে, এটি আরও বড় হয়। এমন কি বিশ্বকাপের চেয়েও।’

বিজ্ঞাপন

বিশ্বকাপ জিতলেও অস্ট্রেলিয়ার চেয়ে ভালো অবস্থায় নেই ইংল্যান্ড। এমনটাই বলছেন রুট, ‘যাই জিতি না কেন, আমরা আসলেই বেশি ভালো জায়গায় নেই। আমাদের নিয়ে একধাপ এগিয়ে কথা হবে, তবে আমাদের পেছনের কথাও ভাবতে হবে।’

শিরোপা জেতা নিয়ে সাদা জার্সির নেতার বক্তব্য, ‘রোববারের জয়ের অনুভবটা দারুণ। এই অভিজ্ঞতা অর্জন করা খুবই উত্তেজনাকর। তবে অ্যাশেজের সর্বদাই একটি ভিন্ন দিক থাকে এবং সেটা নিজের মতো করেই সামনে চলবে।’

৫০ ওভারের সাফল্যের সঙ্গে অ্যাশেজ ট্রফিটা যোগ করতে পারলে কেমন হবে? রুট বলছেন, ‘সর্বোচ্চ’। আমরা এখন অর্ধেক পথে। অনেক কঠিন কাজ, কিন্তু আশা করি, আমরা তা করতে পারব।’

রোববার লর্ডসের ফাইনালে নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে মূল ওভার ও সুপার ওভারে টাই করার পর বাইন্ডারির হিসাবে এগিয়ে থেকে চ্যাম্পিয়ন হয় ইংল্যান্ড।

Bellow Post-Green View