চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বিশ্বকাপেই অ্যাশেজের ঝাঁজ আনলেন রুট

দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী। অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ড। বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ধ্রুপদী লড়াইয়ের প্রত্যাশাই ছিল। মাঠে অবশ্য পাত্তাই পায়নি অস্ট্রেলিয়া। ফিঞ্চদের ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারিয়ে ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে ইংলিশরা।

দুর্দান্ত জয়ের পর বলার থাকতে পারে অনেককিছুই। জো রুট সেই বলাটা বিশ্বকাপ ডিঙিয়ে নিয়ে গেলেন আসন্ন অ্যাশেজ পর্যন্ত। ছাইভস্মের সিরিজ নিয়ে কথার লড়াই শুরু করে দিয়েছেন ইংল্যান্ডের টেস্ট অধিনায়ক।

বিজ্ঞাপন

শিরোপার মঞ্চে পা রেখে উচ্ছ্বসিত রুট বলেন, ‘এখানকার পরিবেশ ছিল চমৎকার। এখানে অনেক ইংল্যান্ড সমর্থক ছিলেন। স্ট্যান্ডগুলো ছিল দারুণ। শেষদিকে হৈ-চৈ করতে দেখা গেছে তাদের। এটি আপনাকে দারুণ অনুভূতি দেবে। কেননা, অ্যাশেজের প্রথম টেস্টের কয়েক সপ্তাহ বাকি আছে।’

এজবাস্টনে বৃহস্পতিবার সেমিতে অস্ট্রেলিয়াকে দাঁড়াতেই দেয়নি ইংল্যান্ড। প্রথমে ব্যাট করা অজিদের ২২৩ রানে আটকে ফেলে স্বাগতিকরা। পরে ১০৭ বল ও ৮ উইকেট হাতে রেখেই জয়ের বন্দরে নোঙর করে মরগানের দল।

বিজ্ঞাপন

সেমিফাইনালে বিধ্বস্ত হলেও অ্যাশেজে যে অস্ট্রেলিয়ার পুরনো রূপ দেখা যাবে সেটি জানেন রুটও। তাই সাবধানীই থাকছেন, ‘অস্ট্রেলিয়া এই ম্যাচ নিয়ে বেশি মাথা ঘামাবে না। তবে এমন পারফরম্যান্স উপহার দিতে পারা দারুণ। ফরম্যাট যেটাই হোক, অস্ট্রেলিয়াকে নিয়ে কোনো ভীত নেই সেটা দেখিয়েছি আমরা।’

অজিদের প্রতি সম্মান রেখেই নিজেদের ভীত না থাকার কথা বলেছেন রুট। ইংল্যান্ডের টেস্ট অধিনায়ক সেই কথায় যেন বার্তা দিয়ে রাখলেন সাদা পোশাকের সিরিজের জন্যও।

‘তাদের প্রতি অনেক সম্মান রয়েছে। কেননা, সব ধরনের ফরম্যাটেই অস্ট্রেলিয়া গ্রেট দল। তবে অতীতের মতো এখানে ভীত হওয়ার মতো কোনো উপাদান নেই।’

আগামী ১ আগস্ট বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ভেন্যু এজবাস্টনেই পাঁচ ম্যাচ অ্যাশেজ সিরিজের প্রথমটিতে মুখোমুখি হবে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া। লর্ডস, হেডিংলি, ম্যানচেস্টার ও ওভালে মর্যাদার লড়াইয়ের বাকি চারটি টেস্ট হবে।

Bellow Post-Green View