চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বিদেশ ফেরত কারাবন্দী ৮৩ জনের মুক্তি প্রশ্নে রুল

করোনা মহামারীর মধ্যে বিদেশ থেকে দেশে আসার পর কোয়ারান্টিন শেষে যে ৮৩ জনকে কারাগারে নেয়া হয়েছে তাদের কেন মুক্তি দেয়া হবে না, জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

কারাবন্দী ওই ৮৩ জনের মুক্তি চেয়ে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মো: সালাউদ্দিন রিগ্যান গত ১৩ সেপ্টেম্বর হাইকোর্টে একটি রিট করেন। সে রিটের শুনানি নিয়ে আজ বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এই রুল জারি করেন। আগামি দুই সপ্তাহের মধ্যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব, পররাষ্ট্র সচিব, আইন সচিব, পুলিশের আইজী ও কারা মহাপরিদর্শককে এই রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। আজ আদালতে রিটকারি আইনজীবী মো: সালাউদ্দিন রিগ্যান নিজেই শুনানি করেন।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

যে ৮৩ জনকে কারাগারে পাঠানো হয় তাদের মধ্যে ৮১ জন ভিয়েতনাম ফেরত৷ আর দুই জন কাতার ফেরত৷ এদের বিষয়ে পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘অপরাধে জড়ানোর কারণে এরা বিদেশে জেলে ছিলেন। পরে তাদেরকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো হয়।’

বিজ্ঞাপন

দেশে আসার পর এদের কারাগারে পাঠনোর আগে ১৪ দিন দিয়াবাড়ির কোয়ারান্টিন সেন্টারে রাখা হয়৷ এরপর তাদের ৫৪ ধারায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত কারাগারে রাখার আবেদন করেন তদন্তকারী কর্মকর্তা তুরাগ ধানার উপ-পরিদর্শক মো. আনোয়ার হোসেন। সে আবেদনের শুনানি নিয়ে গত ১ সেপ্টেম্বর ঢাকা মেট্টোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সত্যব্রত সিকদার তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। এরপর থেকেই ওই ৮১ জন কারাগারে রয়েছেন।