চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বার্সাকে ‘সান্ত্বনা মূল্য’ দিয়ে মেসিকে চায় ম্যানসিটি

বার্সেলোনা শেষপর্যন্ত হাল ধরে না থাকলে হয়তো ম্যানচেস্টার সিটির জার্সি গায়ে এ মৌসুমেই মাঠ মাতাতে দেখা যেত লিওনেল মেসিকে। মেসি ন্যু ক্যাম্পে থেকে যাওয়ায় মহাতারকাকে পাওয়া হয়নি সিটিজেনদের। সেজন্য একেবারেই হাল ছেড়ে দেয়নি ইংলিশ ক্লাবটি। শীতকালীন দলবদলে আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ডকে পাওয়ার জন্য নতুন করে প্রস্তুতি নিচ্ছে পেপ গার্দিওলার দল।

ব্রিটিশ পত্রিকা ডেইলি স্টারের প্রতিবেদন, বার্সা অধিনায়ককে পেতে আগামী জানুয়ারির দলবদলে নতুন কৌশল ঠিক করেছে ম্যানসিটি। ৩৩ বছর বয়সী ফরোয়ার্ডের জন্য তারা দিতে চায় ‘১৬ মিলিয়ন’ ইউরো! যেখানে ২০২১ সালের জুন পর্যন্ত আর্জেন্টাইন অধিনায়কের জন্য ৭০০ মিলিয়ন বাই আউট ক্লজ বেধে দিয়েছে বার্সা, সেখানে ম্যানসিটি এমন প্রস্তাব দিয়ে বসলে কাতালান কর্তাদের চেহারাটা দেখার মতোই হয়তো হবে!

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

ম্যানসিটির এমন প্রস্তাব কিন্তু একেবারেই অমূলক নয়। ২০২০-২১ মৌসুম শেষ হলেই বার্সার সঙ্গে বর্তমান চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়ে যাবে মেসির। এর আগে তাকে নতুন চুক্তিতে বসাতে না পারলে কাতালানদের চোখের সামনে দিয়ে বিনামূল্যে যেকোনো ক্লাবে যেতে পারবেন আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড। এটা এখন সবারই জানা যে, ফ্রি ট্রান্সফারের সময়টার জন্য অধীর আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষায় ম্যানচেস্টার সিটি।

ম্যানসিটির সামনে এখন বড় চ্যালেঞ্জ আসছে বছর বার্সার প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। বর্তমান প্রেসিডেন্ট জোসেপ মারিয়া বার্তেমেউয়ের অধীনে নতুন চুক্তিতে বসবেন না মেসি, এটা দিনের আলোর মতোই পরিষ্কার। নতুন প্রেসিডেন্ট আর তার নতুন বোর্ড মহাতারকাকে খুশি করতে পারলে হয়তো বার্সাতেই ক্যারিয়ার শেষ করবেন মেসি। সেটা ঠেকাতে জানুয়ারির দলবদলে মোটামুটি মূল্যে সাবেক শিষ্যকে চাইছেন সিটি কোচ গার্দিওলা। ‘নাই মামার চেয়ে কানা মামা ভালো’ প্রস্তাব পাওয়ার পর বার্সা কি সিদ্ধান্ত নেয় সেটাও দেখার।

সিটির চিফ অপারেশন ম্যানেজার ওমর বেরাদা অবশ্য বেশ কয়েকবারই উচ্চারণ করেছেন, মেসিকে কেনার মতো বেশ ভালো সামর্থ্য তাদের আছে। ম্যানসিটির পেট্রো ডলারের শক্তি নিয়ে কারোই সন্দেহ নেই। সমস্যা হচ্ছে মেসির ইচ্ছা আর বার্সার প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। মৌসুমের আগে যেখানে ম্যানসিটির টাকা খরচের ইচ্ছাই ছিল না, সেখানে এবার তো তাও কিছু অর্থের প্রস্তাব দেয়ার কথা ভাবা হচ্ছে। বার্সার পরবর্তী পদক্ষেপের উপর তাই অনেককিছু নির্ভর করছে।