চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বাধার মুখে যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসন প্রত্যাশীদের স্রোত

সেন্ট্রাল আমেরিকার অভিবাসীপ্রত্যাশীদের একটি দল গুয়াতেমালায় পৌঁছানোর পর সেখানকার নিরাপত্তাকর্মীদের বাধার মুখে পড়েছে। তাদের উপর লাঠি চার্জের পাশাপাশি কাঁদানে গ্যাসও ছোড়া হয়।

স্থানীয় সময় রোববার হন্ডুরাস সীমান্তের কাছে হাজার হাজার অভিবাসন প্রত্যাশী রাস্তা বন্ধ করে দাঁড়ায়। সেদেশের সরকার জানিয়েছে, তারা কোনো অবৈধ গণআন্দোলন সমর্থন করবে না।

প্রায় ৭ হাজার অভিবাসন প্রত্যাশীদের বেশিরভাগই হন্ডুরাসের। সম্প্রতি সহিংসতা ও দারিদ্র থেকে বাঁচতে তারা গুয়াতেমালা সীমান্তের কাছে এসেছে জড়ো হয়। প্রথমে মেক্সিকোতে প্রবেশ করতে চেয়েছিল দলটি। পরে তারা যুক্তরাষ্ট্র সীমান্তে পৌঁছে। যুক্তরাষ্ট্রে কাজ ও নিরাপত্তা পাওয়াই তাদের প্রধান চাওয়া।

প্রতি বছর লাখ লাখ অভিবাসন প্রত্যাশী যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের চেষ্টা করে। তাদের বেশিরভাগই পায়ে হেঁটে এই চেষ্টা করে থাকে। সম্প্রতি নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন তার পূর্বসূরি ডোনাল্ড ট্রাম্পের কঠোর অভিবাসন নীতির সমাপ্তি টানার কথা বলেছেন।

আগামী বুধবার শপথ গ্রহণ করবেন বাইডেন। তবে অভিবাসন প্রত্যাশীদের এভাবে যাত্রা শুরু থেকে বিরত থাকতে বলেছেন তিনি। কারণ রাতারাতি সবকিছু বদলে যাবে না।

বাইডেনের উপদেষ্টা সুসান রাইস বলেন, সীমান্ত প্রক্রিয়াতো আর কোনো লাইট না; যে সুইচ চেপে অন বা অফ করে দেওয়া যাবে।

যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা বলছেন, অভিবাসন প্রত্যাশীদের বুঝতে হবে, তারা শিগগির যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করতে পারবে না। আগে থেকে যারা এখানে আছে; তাদের নিয়ে আগে কাজ করা হবে। যারা আসতে চাইছে, তাদের নিয়ে নয়। তাই প্রথম দিনেই সীমান্ত খুলে দেওয়া হবে এমন ধারণা করবেন না।