চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বাইডেন-জিনপিং ফোনালাপ

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেওয়ার পরে প্রথমবারের মতো জো বাইডেন এবং চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের মধ্যে ফোনালাপ হয়েছে।

বাইডেন হংকং এবং জিনজিয়াংয়ে মানবাধিকার নিশ্চিতের কথা বলেছেন বলে জানিয়েছে হোয়াইট হাউজ। তবে চীনের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে এখনো কিছু বলা হয়নি।

বিজ্ঞাপন

এক বিবৃতিতে হোয়াইট হাউজ জানিয়েছে, দুই পরাশক্তির মধ্যে বিরোধপূর্ণ সম্পর্ক কী হতে পারে তার জন্য মঞ্চ নির্ধারণ করে বাইডেন শিকে লুনার নতুন বছরের জন্য শুভেচ্ছা ও শুভ কামনা জানান।

তবে পূর্বসূরি ডোনাল্ড ট্রাম্পের অধীনে চারটি অশান্ত বছরের পরে ওয়াশিংটন-বেইজিং সম্পর্কের জন্য নিজস্ব ভিত্তি প্রতিষ্ঠা করেছেন বাইডেন।

ইন্দো-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে চীনের ক্ষমতার অভিক্ষেপ, হংকংয়ের গণতন্ত্রপন্থী কর্মীদের বিরুদ্ধে ক্র্যাকডাউন এবং জিনজিয়াং অঞ্চলে লক্ষ লক্ষ মুসলিম উইঘুরের উপর নিপীড়নমূলক আচরণ নিয়ে বাইডেন তার প্রতিপক্ষকে চ্যালেঞ্জ করেন।

ওই ফোনকলে বাইডেন শিকে বলেন, আমেরিকার জনগণের নিরাপত্তা, সমৃদ্ধি, স্বাস্থ্য ও জীবনের পথ এবং একটি মুক্ত এবং উন্মুক্ত ইন্দো-প্যাসিফিক সংরক্ষণই তার মূল অগ্রাধিকার।

বিশেষ করে বাইডেন বেইজিংয়ের জবরদস্তি ও অন্যায্য অর্থনৈতিক চর্চা, হংকংয়ে ক্র্যাকডাউন, জিনজিয়াংয়ে মানবাধিকার লঙ্ঘন, এবং তাইওয়ানসহ এই অঞ্চলে ক্রমবর্ধমান দৃঢ় পদক্ষেপের বিষয়ে তার মৌলিক উদ্বেগের বিষয়ে গুরুত্ব দেন।

দুই নেতার মধ্যে করোনাভাইরাস মহামারী, জলবায়ু পরিবর্তন এবং অস্ত্রের বিস্তার নিয়েও কথা হয়।

হোয়াইট হাউজ জানিয়েছে, ফোনালাপে আমেরিকান জনগণ এবং আমাদের মিত্রদের স্বার্থকে অগ্রাধিকার দিলেই ব্যবহারিক, ফলাফল-ভিত্তিক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণের প্রতিশ্রুতি দেন বাইডেন।

বিজ্ঞাপন