চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বর্ণবাদী মন্তব্য করে চরম বিপাকে পাকিস্তানি অধিনায়ক

সাউথ আফ্রিকার অলরাউন্ডার আন্দিলে ফেলুকোয়ওয়ের বিপক্ষে বর্ণবাদী মন্তব্যের কারণে পাকিস্তান অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ গুরুতর সমস্যায় পড়তে পারেন। পাকিস্তান-সাউথ আফ্রিকার দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচ চলার সময় সরফরাজের করা মন্তব্য স্টাম্প মাইকে ধরা পড়ার পর সরগরম ক্রিকেটাঙ্গন।

বুধবার পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের দ্বিতীয়টিতে মুখোমুখি হয়েছিল দুই দল। ঘটনা সেই ম্যাচের ৩৭তম ওভারে। শাহিন শাহ আফ্রিদির দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে ইনসাইডএজ হয়ে কোনমতে বেঁচে যান ফেলুকোয়ও। তখনই উইকেটের পেছনে থাকা সরফরাজ বাজে মন্তব্য করেন।

বিজ্ঞাপন

চরম ব্যাটিং ব্যর্থতার পরও ম্যাচে প্রথম ব্যাট করে ২০৩ রান করে পাকিস্তান। বল হাতে ৮০ রানে সাউথ আফ্রিকার ৫ উইকেট তুলে নিয়ে জয়ের আশাও জাগিয়েছিল সফরকারীরা। কিন্তু এরপরই ভ্যান ডার ডুসেনের সঙ্গে ১২৭ রানের অপরাজিত জুটি গড়ে দলকে জেতান ফেলুকোয়ও। বল হাতেও চার উইকেট নেন তিনি। ব্যাটে ৮০ বলে অপরাজিত থাকেন ৬৯ রানে। ডুসেন করেন অপরাজিত ৮০ রান। শেষ পর্যন্ত প্রোটিয়ারা ৫ উইকেটে ম্যাচ জিতে সিরিজে ১-১ সমতা ফেরায়।

শুরুতে পাঁচ উইকেট তুলে নিয়ে পরে ক্যাচ মিস, রিভিউতে ফেলুকোয়ও’র বেঁচে যাওয়া। এসবকিছু নিয়ে বেশ হতাশ ছিলেন পাকিস্তানি খেলোয়াড়রা। অধিনায়ক হিসেবে সরফরাজ একটু বেশিই হতাশ ছিলেন।

এসময় শাহিন আফ্রিদির বলে ফেলুকোয়ও বেঁচে যাওয়ায় উর্দুতে সরফরাজ বলেন, ‘আবে কালে, তেরি আম্মি আজ কহন বহেন হায়? কি পারওয়া ক আয়ে হ্যায় আজ?’

বিজ্ঞাপন

যার বাংলা করলে দাঁড়ায়, ‘আরে কালো ম্যান, তোমার মা আজ কোথায় বসে আছেন? তুমি কি তাকে তোমার জন্য প্রার্থনা করতে বললে?’

এই ঘটনা পাকিস্তান দলে বিপর্যয় বয়ে আনতে পারে, এমনকি প্রোটিয়া সফরের বাকি সময়টা সরফরাজকে ছাড়াই খেলতে হতে পারে তাদের।

কারণ, আইসিসির বর্ণবাদবিরোধী আইন অনুযায়ী, কোনো খেলোয়াড় বা সহায়তা কর্মী প্রথমবারের মতো এমন অপরাধে দোষী সাব্যস্ত হলে চার থেকে আট ম্যাচ স্থগিতাদেশের শাস্তি পাবে, চার থেকে আটটি ওয়ানডে বা টি-টুয়েন্টি ম্যাচে এই স্থগিতাদেশ পেতে পারে।

Bellow Post-Green View