চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

বন্ধ হোক মানবপাচারের নামে অমানবিক হত্যাযজ্ঞ

লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশিসহ মোট ৩০ জনকে গুলি করে হত্যা করেছে। স্থানীয় এক মানবপাচারকারীর পরিবারের সদস্যরা এ হত্যাকাণ্ডের পেছনে রয়েছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। পাচারকারীরা ত্রিপলী থেকে ১৮০ কিলোমিটার দূরে তাদের হত্যা করে। লিবিয়ার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, এই ঘটনায় আরও ১১ জন বাংলাদেশি মারাত্মকভাবে আহত হয়েছেন।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন: মানব পাচারকারীদের ঠেকানো না গেলে এইসব হত্যাকাণ্ড বন্ধ করা যাবে না। অনেক আগেই মানব পাচারকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করা হলেও তা সঠিক উপায়ে কার্যকর হয়নি। কিছুদিন বন্ধ থাকলেও আবার শুরু হয়েছে। আর তার কারনেই এবার এক সঙ্গে ২৬ প্রান গেলো বলে মন্তব্য করেন তিনি।

লিবিয়ায় নিহত ২৬ জনের লাশ রাজধানীর একটি হাসপাতালে সংরক্ষিত রাখা হয়েছে বলে জানাত দূতাবাস। লিবিয়াতে আনুষ্ঠানিকভাবে কোন সরকার না থাকায় তাদের সঙ্গে যোগাযোগ ও সহযোগিতা পাওয়া কঠিন হচ্ছে হলেও ইঙ্গিত দেন মন্ত্রী।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

লিবিয়ার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, এই ঘটনায় আরও ১১ জন বাংলাদেশি মারাত্মকভাবে আহত হয়েছেন।

লিবিয়ায় অভিবাসী প্রত্যাশী ২৬ জনকে গুলি করে হত্যার ঘটনা নতুন করে কিছু নয়। অবৈধপথে মানব পাচারকারীদের হাত থেকে মানুষের যেনো রক্ষা নেই। মানুষ নিজের জীবনের মায়া ত্যাগ করে এক ধরণের দুঃসাহসী অভিযানে নেমেছে। উন্নত জীবনের হাতছানি মানুষকে করে তুলেছে এত দুঃসাহসী। প্রতি বছর আমরা এমন সব ঘটনা ঘটতে দেখি। আমরা সরকারে কাছে দেশে আরও কর্মসংস্থানের দাবির পাশাপাশি এই ঘটনার পুনারাবৃত্তি যেনো না হয় সেদিকে দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কথা অনুযায়ী আমরা দ্রুত মানব পাচারকারীদের অবৈধ তৎপরতা বন্ধের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবি জানাই।