চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘প্রস্তুতি ঠিকই ছিল, আমরা পারফর্ম করতে পারিনি’

নিউজিল্যান্ড সফরে আক্ষেপ আর টানা হতাশা উপহার দেয়া বাংলাদেশ দলের শেষটা হয়েছে বড্ড হতশ্রী। শেষ টি-টুয়েন্টিতে বোলাররা বেধড়ক পিটুনি খাওয়ার পর ব্যাটসম্যানরা ছিলেন নিজেদের ছায়া হয়ে। সাজঘরে ফেরার প্রতিযোগিতায় পুরো ১০ ওভারও টিকতে পারেনি লিটন দাসের দল। ৯.৩ ওভারে গুটিয়ে যায় ৭৬ রানে।

ছোট ম্যাচে ৬৫ রানের বড় হার মেনে নিতে পারছেন না বাংলাদেশের টি-টুয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। শেষ ম্যাচে চোটের কারণে না খেললেও কিউই গণমাধ্যমের প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন তিনিই।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

‘আপনি যখন ৭৬ রানে অলআউট হবেন, তখন সেখান থেকে ইতিবাচক কিছু নেয়ার থাকে না। আমার মনে হয় আমরা সিরিজজুড়ে আমাদের সেরা ক্রিকেট খেলিনি।’

বিজ্ঞাপন

‘আমরা এখানে আগে এসেছি, নিজেদের প্রস্তুত করেছি, কুইন্সটাউনে ভালো একটি ক্যাম্প করেছি, ছেলেরা কঠোর পরিশ্রম করছিল, জিমে কাজ করছিল, কিন্তু আমরা মাঠে সেটি দেখাতে পারিনি। অধিনায়ক হিসেবে এটা হতাশাজনক। তারপরও আমাদের এই সিরিজ থেকে কিছু বের করতে হবে যা নিয়ে পরের সিরিজের জন্য কাজ করতে পারব।’

‘অবশ্যই আমরা এই সিরিজটি ভুলতে চাইবো। কারণ আমরা এখানে এসেছিলাম কিছু অর্জন করতে, আমরা এখানে আগে কখনও কিছু করতে পারিনি। আমরা মুখিয়ে ছিলাম এই সফরে প্রতিযোগিতার জন্য, কিন্তু আমরা কিছু করতে পারিনি।’

‘আমার মনে হয় এটা কঠিন ছিল (কোয়ারেন্টাইন)। আমাদের নিয়ম মানতে হবে, এটা নিউজিল্যান্ডবাসীর কল্যাণের জন্য, সুতরাং আমাদের এটিকে সম্মান করতে হবে। কিন্তু কোয়ারেন্টাইন খুবই কঠিন। কারণ ৮ দিন একটি রুমে থাকতে হয় এবং তারপর আমরা অনুমতি পাই দুই ঘণ্টার জন্য বাইরে যাওয়ার। কিন্তু আমরা ভালো সময় কাটিয়েছি, ব্যাটিং, গ্রাউন্ড ফিল্ডিং করে। প্রস্তুতির হিসাবে আমাদের প্রস্তুতি ঠিকই ছিল। আমরা পারফর্ম করতে পারিনি।’ এভাবেই হতাশার প্রকাশ করেন অধিনায়ক।

‘আমরা জানতাম এটি কঠিন হবে, নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে যে কারোরই খেলতে সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। সাম্প্রতিক সময়ে অস্ট্রেলিয়ার জন্যও কঠিন ছিল। আমরা জানতাম আমাদের তিন বিভাগেই নিজেদের সেরাটা দিতে হবে উড়ন্ত ফর্মে থাকা তাদের হারাতে। আমরা তা করতে পারিনি।’