চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

প্রচারে আসছে জোভান-উর্মিলার সম্পর্ক

নাটক ও টেলিছবি নির্মাণের মধ্য দিয়ে জনপ্রিয়তা পেয়েছে প্রাণ গ্রুপের নিয়ন্ত্রণাধীন প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান পিআর প্রোডাকশন। বিশেষ দিবসগুলোকে ঘিরে জমকালো বিনোদনের আয়োজন নিয়ে হাজির হয় বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে।

এবার প্রতিষ্ঠানটি নির্মাণ করেছে ধারাবাহিক নাটক। আগামী মঙ্গলবার (৩ এপ্রিল) থেকে নাটকটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলে প্রচার শুরু হচ্ছে। জান্নাতুল ফেরদৌস এনার রচনায় নাটকটি পরিচালনা করেছেন মুশফিক কল্লোল। পরিচালক জানালেন, প্রতি সপ্তাহের মঙ্গল ও বুধবারে নাটকটি প্রচার হবে রাত ৮টায়।

বিজ্ঞাপন

‌‘সম্পর্ক’ নাটকে জুটি বেঁধে অভিনয় করেছেন জোভান ও উর্মিলা শ্রাবন্তী কর। এখানে জোভানের চরিত্রের নাম অর্ণব ও উর্মিলা অভিনয় করেছেন অবনী নামে। এছাড়া আরও অভিনয় করেছেন শর্মিলী আহমেদ, নিমা রহমান, কায়েস চৌধুরী, মোহম্মদ তারিক নিয়াজ, করবী মিজান, সেতু ফাল্গুনী, এ কে আজাদ সেতু, হিমে হাফিজ, দোলন দে, প্রনীল এমিলা হক প্রমুখ।

এই নাটকের গল্পে দেখা যাবে, অবনী মির্জা পরিবারের আশ্রিতা। পনেরো বছর আগে একজন দাড়োয়ান তার ভাগ্নি পরিচয়ে অবনীকে এই বাড়িতে নিয়ে আসে। তারপর থেকে এই বিলাস বহুল বাড়িটাই অবনীর পরিচয়। খুব সাদাসিদে জীবন যাপন করে সে। এই বাড়ির একমাত্র ছেলে অর্ণব যে কিনা বর্তমানে বিদেশে পড়াশুনা করছে। ছোটবেলায় বাড়ির অন্যান্যরা অবনীকে তূচ্ছ করলেও অর্ণব ছিলো তার খেলার সাথী। ছোটবেলার সেই অর্ণবকে কখন যে ভালোবেসে ফেলেছে অবনী নিজেও জানে না।

অর্ণবের বাবা রায়হান মির্জা এই বাড়ির বড় ছেলে। সমস্ত সম্পত্তি তার হলেও ছোট ভাই রাশেদ মির্জা ও বোন রুমেনা মির্জাকে নিজের বাড়িতেই রাখেন। বড় ভাইয়ের সামনে সবকিছু না বোঝার ভান ধরে থাকলেও দু’জনের উদ্দেশ্য অর্ণবের সাথে তাদের মেয়ে বিয়ে দিয়ে চিরদিনের মতো এই বাড়িতে রাজত্ব করবেন। অবনী রায়হান মির্জাকে বাবা আর তার স্ত্রী লুবনা মির্জাকে মা ডাকলেও লুবনা মির্জা অবনীকে মেয়ের মতো দেখেন না।

রুমেনা মির্জা ঠিক করে, অবনীকে বিয়ে দিয়ে চিরদিনের মতো এই বাড়ি থেকে বের করে দেবে। অবনীর জন্য পাত্র দেখা হয়। পাত্রের মফস্বল শহরে ছোট একটা দোকান আছে। অনিচ্ছা স্বত্তেও বিয়েতে মত দেয় অবনী। কিন্তু অবনি জানে তার হিয়ার মাঝে অর্ণব সবসময় থাকবে। অর্ণবকে ছাড়া সে নিজেকে নিয়ে কিছুই ভাবতে পারে না। শুরু হয় বিয়ের আয়োজন। ঠিক বিয়ের দিন মির্জা পরিবারে এক নাটকীয় ঘটনা ঘটে। যে ঘটনায় বাড়ির সবাই থমকে যায়।

নাটকটি নিয়ে জোভান বলেন, ‘বেশ চমৎকার একটি গল্পের নাটক। চরিত্রগুলোর সাবলীলতা আছে। সম্পর্কের টানাপোড়েনগুলোও এখানে নির্মাণের মুন্সিয়ানা ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করেছেন কল্লোল ভাই। নাটকটি প্রচারের অপেক্ষায় ছিলাম। আশা করছি এটি দর্শকপ্রিয়তা পাবে।’