চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

পালিয়ে বিয়ের পরিকল্পনা!

কনে মেহজাবিন। পাত্র অপূর্ব। সহজ সমীকরণের কথা ভাবছেন যারা তারা বোকা বনবেন নিঃসন্দেহে। অনুগ্রহ করে পড়ুন তবে। দুজনের দেখা শেষে পাত্র পাত্রীকে আলাদা রুমে পাঠানো হলে অপূর্ব জানতে পারে মেহেজাবিন ভালোবাসে অন্য এক ছেলেকে! সেই ছেলে থাকে বিদেশে। যার সাথে বিয়ে দিতে নারাজ তার পরিবার। ছেলেটা দেশে ফিরবে ১৫ দিন পর। দেশে ফিরলে তারা পালিয়ে বিয়ে করবে। এই ১৫ টা দিন অপূর্বের কাছে আশ্রয় পাওয়ার অনুরোধ করে সে।

অথচ বিয়ে করতে চাচ্ছিলেন না অপূর্ব। কিন্তু বিয়ের বয়স হয়ে যাওয়া স্টাব্লিশড ছেলেকে বিয়ে দেয়ার জন্য উঠেপড়ে লাগলেন তার মা। অতঃপর মায়ের বারংবার বিয়ের চাপে এক প্রকার বাধ্য হয়েই মায়ের সাথে পাত্রী দেখতে যান তিনি। আর সেখানে যত গণ্ডগোল। সুন্দরী পাত্রী মেহেজাবিনকে দেখে প্রথম পলকেই ভালো লেগে যায় তার। জীবনে প্রথম কোনো মেয়ের প্রেমে পড়েন তিনি। সিদ্ধান্ত নিয়ে নেন বিয়ে করবেন তিনি এই মেয়েকেই!

নির্মাতা মাবরুর রশীদ বান্নাহর সেলফিতে অপূর্ব, লেখক কাওসার আহমেদ ও মেহজাবিন এখন অন্যরকম প্রেমের টানে অপূর্ব পালিয়ে বিয়ে করতে চাওয়া মেহজাবিনকে আশ্রয় দিতে চুপিচুপি পালিয়ে নিয়ে যায় এক বন্ধুর বাসায়। তারপর কী ঘটে? কী হয় শেষ পরিণতি? উত্তর জানা যাবে ঈদ উপলক্ষে নির্মিত নাটক ‘কতোদিন পর হলো দেখা’ দেখে।

নাটকটি নির্মাণ করেছেন মাবরুর রশিদ বান্নাহ। নাটকের গল্প লিখেছেন কাওসার আহমেদ। নির্মাতা বান্নাহ চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, প্রেম মানে যে ছাড়তে শেখা সেটাই তুলে ধরতে চেয়েছি নাটকটির মাধ্যমে। গল্পকার দারুন গল্প লিখেছেন।’

ঈদুল ফিতর উপলক্ষে আরটিভির বিশেষ অনুষ্ঠানমালায় প্রচার হবে নাটকটি।

শেয়ার করুন: