চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

পাচারের ২ বছর পর বাংলাদেশী কিশোরের দেশে ফেরা

মানব পাচারের শিকার হয়ে থাইল্যান্ড-মালয়েশিয়ায় বন্দী জীবন কাটানোর দুই বছর পর বাংলাদেশী এক কিশোরকে আজ শুক্রবার দেশে ফিরিয়ে আনা হচ্ছে।

মালয়েশিয়ার বেসরকারি সংস্থা তেনেগানিতা ও বাংলাদেশী স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন মাইগ্রেন্ট ৮৮-এর সহযোগিতায় দেশে ফিরছে ১৭ বছরের এই কিশোর।

বিজ্ঞাপন

এলাকা বিশেষে বাংলাদেশে মানব পাচারের শিকার হচ্ছে নারী, শিশু ও বিশেষভাবে নিম্নবিত্ত পরিবারের তরুণেরা। গত কয়েক বছরে বিশেষ করে আমাদের দেশের অনেক তরুণ, নারী ও শিশুরা এই পাচারকারীদের শিকারে পরিণত হয়ে সব হারিয়েছে এমনকি মৃত্যুবরণ করেছে। আবার অনেকেই হারিয়ে গেছেন চিরতরে। যারা আজ পরিবারের কাছে শুধুই স্মৃতি।

বিজ্ঞাপন

১৭ বছরের কিশোর রহিম (ছদ্মনাম) এমনই এক দরিদ্র পরিবারের হতভাগা সন্তান। ২০১৪ সালে ১৫ বছর বয়সে রহিম মানবপাচারের শিকার হন।

পাচারকারীরা রহিমকে কক্সবাজার থেকে নৌকায় থাইল্যান্ড নিয়ে যান। সেখানে তাকে বন্দী রেখে পরিবার থেকে এক লক্ষ টাকা মুক্তিপণ নেন। এরপরও তাকে মুক্তি না দিয়ে বরং মালয়েশিয়ার পেনাংয়ে নিয়ে বিক্রি করে দেয়া হয়।

অবশেষে মালয়েশিয়ার বেসরকারি সংস্থা তেনেগানিতার মাধ্যমে মানসিক ভারসাম্যহীন অবস্থায় উদ্ধার হয় রহিম। তেনেগানিতা এবং বাংলাদেশের স্বেচ্ছাসেবি সংগঠন মাইগ্রেন্ট ৮৮ এর সহযোগীতায় শুক্রবার ৩ জুন রহিম দেশে ফেরত আসছে।

রহিমকে শাহজালাল আর্ন্তজাতিক বিমানবন্দরে অভ্যর্থনা জানাবে  মাইগ্রেন্ট ৮৮ এবং পরের দিন তার গ্রামের বাড়ি নারায়ণগঞ্জে পৌছে দেয়া হবে। এছাড়াও তাকে ভবিষ্যতে চিকিৎসা সেবা এবং আইনি সেবা প্রদানের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে মাইগ্রেন্ট ৮৮।

Bellow Post-Green View