চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নারীদের মুক্তির জন্য বেগম রোকেয়া নিজের জীবন উৎসর্গ করেছেন

জাতীয় অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলাম বলেছেন, বেগম রোকেয়া নিজের জীবন উৎসর্গ করেছিলেন বাঙালি মুসলমান মেয়েদের সামাজিক ও সাংস্কৃতিক মুক্তির জন্য। একজন মুক্ত মনের মানুষ ছিলেন। আজীবন তিনি মেয়েদের শিক্ষা বিস্তারের জন্য প্রয়াস চালিয়ে গেছেন।

রোববার সন্ধ্যায় ‘রোকেয়া দিবস’ উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোকেয়া হলে রোকেয়া মেমোরিয়াল ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, ‘নারী জাগরণের অগ্রদূত বেগম রোকেয়ার প্রতি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তথা বাংলাদেশের শ্রদ্ধার নিদর্শন হলো রোকেয়া হল।

Advertisement

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, ‘বেগম রোকেয়ার মতো মেয়েদের (শিক্ষার্থীদের) সকল দক্ষতা অর্জন করে দেশকে নেতৃত্ব দেয়ার যোগ্যতা অর্জন করতে হবে।’

উক্ত অনুষ্ঠানে রোকেয়া মেমোরিয়াল স্বর্ণপদক পেয়েছেন ফার্মেসী বিভাগের শিক্ষার্থী হালিমা আক্তার, মেধাবৃত্তি পেয়েছেন পপুলেশন সায়েন্স বিভাগের প্রিয়াংকা সুলতানা, তথ্যবিজ্ঞান ও গ্রন্থাগার ব্যবস্থাপনা বিভাগের সুস্মিতা সাহা, প্রাণরসায়ন বিভাগের ও অনুপ্রাণ বিজ্ঞানের নাবিলা নাওয়ার বিন্তি, দুর্যোগ বিজ্ঞান ও ব্যবস্থাপনা বিভাগের উম্মে খাদিজা পিয়াল এবং সাধারণ বৃত্তি পেয়েছেন অণুজীব বিজ্ঞানের আকসা হোসেন নিঝুম, মনিরা চৌধুরী মিলা, জীন প্রকৌশল ও জীব প্রযুক্তি বিভাগের কানিজ ফাতেমা, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের রাজিয়া সুলতানা বিথী এবং কল্যাণবৃত্তি পেয়েছেন সংস্কৃতি বিভাগের হরিপ্রিয়া রানী। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য তাদের হাতে এ পুরস্কার তুলে দেন।

রোকেয়া হলের প্রাধ্যক্ষ ড. জিনাত হুদার সভাপতিত্বে এসময় আরও বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ ড. কামাল উদ্দীন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন রোকেয়া হলের আবাসিক শিক্ষক ড. রুমানা ইসলাম।