চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

নভেম্বর মাসে সামান্য কমেছে রেমিট্যান্স

অক্টোবর মাসের চেয়ে নভেম্বরে রেমিট্যান্স বা প্রবাসী আয় কমেছে প্রায় সাড়ে ৩ কোটি টাকা। তবে গত বছরের নভেম্বর মাসের চেয়ে সদ্য বিদায়ী নভেম্বর মাসে প্রবাসী আয় বেড়েছে ৫২ কোটি ডলার।

রেমিট্যান্স নিয়ে করা বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ প্রতিবেদনে এ তথ্য তুলে ধরা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

প্রতিবেদনের তথ্য বলছে, চলতি বছরের অক্টোবরে রেমিট্যান্স এসেছিল ২১১ কোটি ২৪ লাখ ডলার। কিন্তু নভেম্বরে এসেছে ২০৭ কোটি ৮৭ লাখ ডলার। অর্থাৎ সাড়ে ৩ কোটি ডলার কম এসেছে।  তবে গত বছরের নভেম্বরের চেয়ে ৫২ কোটি ডলার বেয়ি এসেছে। ওই সময় রেমিট্যান্স এসেছিল ১৫৫ কোটি ৫২ লাখ ডলার।

চলতি অর্থবছরের প্রথম ৫ মাসে (জুলাই- নভেম্বর) প্রবাসীরা প্রায় ১ হাজার ৯০ কোটি ডলার পাঠিয়েছেন, যা আগের অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায়  ৪১ দশমিক ৩২ শতাংশ বেশি। ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রথম ৫ মাসে প্রবাসীরা ৭৭১ কোটি ৬২ লাখ ডলার পাঠিয়েছিলেন। অর্থাৎ গত অর্থবছরের প্রথম পাঁচ মাসের চেয়ে চলতি অর্থবছরের প্রথম পাঁচ মাসে প্রবাসীরা  ৩১৯ কোটি ডলার বেশি পাঠিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদনে দেখা যায়, গত বছরের অক্টোবরের চেয়ে এই বছরের অক্টোবরে প্রায় ৫০ কোটি ডলার বেশি পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা।

এছাড়া গত সেপ্টেম্বরে এসেছে ২১৫ কোটি ডলার। যা গত বছরের একই মাসের তুলনায় ৪৫ শতাংশ বেশি। ওই সময় এসেছিল ১৪৭ কোটি ৬৯ লাখ ডলার।

আগস্টে প্রবাসী আয় এসেছিল ১৯৬ কোটি ডলার। অর্থবছরের প্রথম মাস জুলাইতে প্রবাসীরা ২৫৯ কোটি ৯৫ লাখ ডলারের রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন। একক মাস হিসেবে বাংলাদেশের ইতিহাসে এর আগে কখনও এত পরিমাণ রেমিট্যান্স আসেনি।

রেকর্ড পরিমাণ রেমিট্যান্সে ভর করে দেশের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বেড়ে গেছে। অতীতের সব রেকর্ড ছাপিয়ে রিজার্ভ ৪১ বিলিয়ন ডলার অতিক্রম করেছে।