চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

দেশের বিভিন্ন স্থানে পালিত হচ্ছে ঈদ

সৌদি আরবের সাথে মিল রেখে দেশের বিভিন্ন স্থানে মঙ্গলবার ঈদ-উল-আযহা পালিত হচ্ছে।

টাঙ্গাইল: টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার উপজেলার শশীনাড়া গ্রামে ৪০টি পরিবার উদযাপন করছে পবিত্র ঈদ-উল-আযহা।

২০১২ সাল থেকে এ গ্রামের মানুষ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর সাথে মিল রেখে ঈদ পালন করে আসছে।

সকাল ৮ টায় স্থানীয় মসজিদে ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। নামাজে দুই শতাধিক নারী-পুরুষ অংশগ্রহণ করেন। তবে সরকারি নির্দেশনা মেনে ঈদের নামাজ মসজিদে আদায় করলেও কোনো ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মানতে দেখা যায়নি মুসল্লিদের। স্থানীরা ছাড়াও বিভিন্ন জেলা থেকে আসা মুসল্লিরা নামাজে অংশগ্রহণ করেন।

নামাজ শেষে পশু কোরবানী করা হয়।

দিনাজপুর: দিনাজপুর সদরসহ কয়েকটি স্থানে পৃথকভাবে ঈদ-উল-আযহার নামাজ আদায় করেছেন কমপক্ষে ৫ শতাধিক পরিবার। পরে তারা পশু কোরবানী দিয়েছেন।

মঙ্গলবার সকাল ৭.৩০ মিনিটে শহরের বাসুনিয়াপট্টিতে (পার্টি সেন্টার) একটি কমিউনিটি সেন্টারে ঈদের প্রধান জামাত আদায় করেছেন প্রায় তিন শতাধিক পরিবার। এতে ইমামতি করেন বিরল উপজেলার একটি মাদ্রাসার ( ফ্যামিলি গার্ডেন মাদ্রাসার) শিক্ষক মাওলানা আব্দুর রাজ্জাক।

এছাড়াও পৃথকভাবে চিরিরবন্দর উপজেলার সাইতাড়া রাবার ড্যাম, বিরল উপজেলার বালান্দরপুর, কামদেবপুর কাজীপাড়া, কাহারোল উপজেলার জয়নন্দ এবং গড়েয়াসহ আরো কয়েকটি স্থানে সীমিত সংখ্যক অনুসারি পবিত্র ঈদের নামাজ আদায়সহ পশু কোরবানী দেন বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।

বিজ্ঞাপন

সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে দিনাজপুরের কয়েকটি স্থানে ২০০৭ সাল থেকে দুই ঈদের নামাজ আদায়সহ আনন্দ ভাগাভাগি করে আসছেন কিছু সংখ্যক অনুসারি।

চাঁদপুর: চাঁদপুরের ৪০ গ্রামে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে উৎসবমুখর পরিবেশে উদযাপিত হচ্ছে পবিত্র ঈদ-উল-আযহা। হাজীগঞ্জের সাদ্রা মাদ্রাসা মাঠে সকাল ৯ টায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। জামাতে ইমামতি করেন আল্লামা যাকারিয়া চৌধুরী আল মাদানী।

হাজীগঞ্জ, ফরিদগঞ্জ, মতলব, কচুয়া ও শাহরাস্তিসহ ৫ উপজেলার প্রায় ৪০ টি গ্রামে আজ ঈদ উদযাপিত হচ্ছে। নামাজ শেষে দেশের শান্তি কামনায় মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।

নারায়ণগঞ্জ: সৌদি আরবের সাথে মিল রেখে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় পবিত্র ঈদ-উল-আযহার নামাজ ও পশু কোরবানিসহ ঈদ উদযাপন করেছেন ‘জাহাগিরিয়া তরিকার’ অনুসারীরা। মঙ্গলবার বেলা এগারোটায় সদর উপজেলার ফতুল্লা থানার লামাপাড়া এলাকায় হযরত শাহ্ সুফী মমতাজিয়া এতিমখানা ও হেফজখানা মাদ্রাসায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদের নামাজ আদায় করে ঈদ উদযাপন করেন তারা।

এই ঈদ জামাতে ইমামের দায়িত্ব পালন করেন মুফতি মাওলানা আনোয়ার হোসেন শুভ। ঢাকার কেরানীগঞ্জ, ডেমরা, সাভার, গাজীপুরের টঙ্গী ও নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন উপজেলা থেকে শত শত মুসুল্লি এসে ঈদ জামাতে অংশ নেন।

বৈরি আবহাওয়া ও বৃষ্টির কারণে দূর দূরান্ত থেকে মুসুল্লিরা নির্ধারিত সময়ের মধ্যে এসে পৌঁছতে না পারায় ঈদের জামাত দেরিতে শুরু হয়। নামাজ শেষে বর্তমান করোনা মহামারি থেকে রেহাই পেতে ও বিশ্ব মুসলিম উম্মাহসহ দেশবাসির শান্তি কামনা করে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। ঈদের নামাজ শেষে মুসুল্লিরা একে অপরের সাথে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করে পশু কোরবানি দেন।

পরে মুসুল্লিদের মধ্যে মিষ্টিজাতীয় মুখরোচক খাবার পরিবেশন করা হয়। জাহাগিরিয়া তরিকার অনুসারীরা প্রতি বছর সৌদি আরবের সাথে মিল রেখে এই মাদ্রাসা মসজিদে ঈদ-উল-ফিতর ও ঈদ-উল-আজহা উদযাপন করে থাকেন।

বরগুনা: বরগুনায় সৌদি আরবের সাথে মিল রেখে অর্ধশতাধিক পরিবারও পালন করছে ঈদ-উল-আযহা।

বিজ্ঞাপন