চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

দেশের কয়েকটি স্থানে পালিত হচ্ছে ঈদুল ফিতর

সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে রোববার দেশের কিছু জায়গায় পালিত হচ্ছে পবিত্র ঈদুল ফিতর। দিনাজপুর, চাঁদপুর, বরগুনাসহ কয়েকটি জেলায় ঈদের নামাজ আদায় করেন ধর্মপ্রাণ মুসল্লীরা।

চাঁদপুর
চাঁদপুরের ৪০টি গ্রামের অর্ধলক্ষাধিক ধর্মপ্রাণ মুসলমান রোববার পালন করছে পবিত্র ঈদুল ফিতর। জেলার হাজীগঞ্জ উপজেলার সাদ্রা হামিদীয়া ফাজিল মাদ্রাসায় সকাল পৌঁনে ১০ টায় ঈদের প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত হয়। ঈদের নামাজে ইমামতি করেন সাদ্রা দরবার শরীফের পীর মাওলানা আরিফ চৌধুরী।

বিজ্ঞাপন

এরপর ভিন্ন ভিন্ন সময়ে বিভিন্ন মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। ১৯২৯ খৃীষ্টাব্দে দেশে আগাম ঈদের প্রচলন করেন সাদ্রা দরবার শরীফের তৎকালীন পীর মরহুম ইসহাক চৌধুরী।

ফরিদগঞ্জের টোরা মুন্সিরহাট জামে মসজিদের প্রধান মাওলানা আকরাম হোসেন জানান, দীর্ঘ ৯২ বছর যাবৎ এই দরবার শরীফের প্রথম পীর মাওলানা ইসহাক (রা.) এই দেশে চন্দ্রমাস হিসেব করে সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের সঙ্গে মিল রেখে পবিত্র রোজা পালন এবং সেই হিসেবে দুটি ঈদ উদযাপন করেন।

এরপর তার অনুসারীরা এই ধারাবাহিকতা মেনে চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ, ফরিদগঞ্জ, মতলব উত্তর, শাহরাস্তি ও কচুয়া উপজেলার ৪০টি গ্রামের অর্ধ লক্ষাধিক মুসলমান সৌদির সঙ্গে মিল রেখে আগাম রোজা ও ঈদ পালন করেন।

বিজ্ঞাপন

চাঁদপুরে যেসব গ্রামে আজ পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত হচ্ছে, সে সব গ্রামগুলো হলো: হাজীগঞ্জ উপজেলার সাদ্রা, সমেশপুর, অলিপুর, বেলচো, জাঁকনি, প্রতাপপুর, বলাখাল, মনিহার, গোবিন্দপুর ও দক্ষিণ বলাখাল। ফরিদগঞ্জ উপজেলার লক্ষ্মীপুর, কামতা, সেনাগাঁও, বাসারা উভারামপুর, উটতলী,মুন্সিরহাট, মূলপাড়া, গল্লাক, আইটপাড়া, বদরপুর, ভুলাচোঁ, সোনাচোঁ, পাইকপাড়া, সুরঙ্গচাইল, বালিথুবা, কাইতাড়া, নুরপুর, শাচনমেঘ, শোল্লা, হাঁসা ও চরদুখিয়া। পাঁচআনী কচুয়া উপজেলার উজানি গ্রাম ও মতলব দক্ষিণ উপজেলার দশআনী, মোহনপুর গ্রামে। শাহরাস্তি উপজেলার বেশ কয়েকটি গ্রামের অংশ বিশেষ।

দিনাজপুর
সৌদি আরবের সাথে সঙ্গতি রেখে দিনাজপুরের ১০টি গ্রামে সহস্রাধিক মানুষ রোববার ঈদের নামাজ আদায় করেছে।

দিনাজপুরের পার্টি সেন্টারে সকাল সাড়ে ৭টায় ঈদের প্রধান জামাতটি অনুষ্ঠিত হয়েছে।এখানে ইমামতি করেন, মাওলানা সাইফুল ইসলাম। পৃথকভাবে মহিলাসহ এই ঈদ জামাতে প্রায় তিন শতাধিক মানুষ অংশ নেয়।

অন্যদিকে জেলার চিরিরবন্দর, বিরামপুর, কাহারোল ও বিরলেও অনুষ্ঠিত হয়েছে আগাম ঈদের জামাত।

বরগুনা
সৌদি আরবের সাথে মিল রেখে বরগুনায় ‘কাদেরিয়া চিশতিয়া তরিকার’ অনুসারী ১৫ টি গ্রামের ২ শতাধিক পরিবার ঈদুল ফিতর উদযাপন করছে। জেলার বেতাগী উপজেলায় ১৩০টি, আমতলী উপজেলায় ৬০টি এবং বরগুনা ও পাথরঘাটায় ১০টি পরিবারের রোববার ঈদ উদযাপন করার খবর পাওয়া গেছে।