চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

দর্শক সাড়ায় অভিভূত টিম ‘বিশ্বসুন্দরী’

একেতো করোনার প্রকোপ, তারউপর শীত! সব মিলিয়ে ‘বিশ্বসুন্দরী’ মুক্তি নিয়ে ছিলো নানা শঙ্কা, অনেকেই ভাবছিলেন ‘এসবের মধ্যে দর্শক আসবে তো’? তবে সব আশঙ্কা দূর করে বহুল প্রতীক্ষিত ছবি ‘বিশ্বসুন্দরী’ মুক্তির দিনেই পেল অভিভূত সাড়া! আর তাতে মুগ্ধ পুরো টিম।

প্রথম দিনেই রাজধানীর প্রায় সবগুলো প্রেক্ষাগৃহেই দর্শক চাপ ছিলো দেখার মতো। আর সিনেপ্লেক্সতো হাউজফুল ছিলোই, অবস্থা এমন পর্যায়ে চলে যায় যে- দর্শক চাপে শেষ পর্যন্ত নতুন শো দিতে বাধ্য হয় কর্তৃপক্ষ।

বিজ্ঞাপন

প্রথম দিনে ‘বিশ্বসুন্দরী’ নিয়ে দর্শকের এমন আগ্রহের নিরব স্বাক্ষী স্বয়ং নির্মাতা চয়নিকা চৌধুরী। শনিবার দুপুরে তিনি যখন চ্যানেল আই অনলাইনের সাথে কথা বলছিলেন, তখনও পুরো টিম নিয়ে তিনি ছিলেন বসুন্ধরা সিনেপ্লেক্সে। দেখছিলেন দর্শক প্রতিক্রিয়া।

নির্মাতা জানালেন, প্রথম দিনের অনুভূতি দারুণ। রাজধানীর যে ক’টি প্রেক্ষাগৃহে ছবিটি মুক্তি পেয়েছে, সবগুলো থেকেই ইতিবাচক সাড়া পেয়েছি। দর্শকও হয়েছে সন্তুষজনক। বিশেষ করে সিনেপ্লেক্সে ছবিটি দেখতে দর্শকের এতো চাপ ছিলো যে, নতুন করে সন্ধ্যার পর একটি শো চালু করা হয়। নির্মাতা হিসেবে এই অনুভূতি অবর্ণনীয়।

মুক্তির দ্বিতীয় দিনে সাংবাদিকদের সঙ্গে পরীমনি

রাজধানীতে ‘বিশ্বসুন্দরী’ দেখতে দর্শক আসছে, কিন্তু রাজধানীর বাইরের এক পর্দার হলগুলোর কী খবর? এমনটা চানতে চাওয়া হলে ছবির মার্কেটিংয়ের সঙ্গে যুক্ত মঈনুল ওয়াজেদ রাজীব বলেন, এমনিতেই করোনা ও শীতের কারণে দর্শকের মধ্যে হলে আসার বিষয়ে কিছুটা দ্বিধা দ্বন্দ্ব কাজ করছিলো। আমরাও ভেবেছিলাম, দর্শক কতোটা আসে! কিন্তু প্রথম দিনে ঢাকার বাইরের হলগুলো থেকেও যা আশা করেছিলাম, তারচেয়ে বেশি রেসপন্স পেয়েছি। বিশেষ করে সাভারের সেনা হলে, শ্রীপুরের একটি হলে সবগুলো শো ই হাউজফুল হয়েছে।

তিনি বলেন, ছবিটি দেখে সবাই খুব প্রশংসা করছেন। আশা করছি দর্শকের এই প্রশংসা সামনে সিনেমা হলে আরো দর্শক নিয়ে আসবে।

এদিকে করোনার কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ ছিলো রাজধানীর শ্যামলী সিনেমা হল। ‘বিশ্বসুন্দরী’ দিয়েই আবার হলটি চালু হয়েছে। প্রথম দিনে কেমন দর্শক পেয়েছে শ্যামলী? জানতে যোগাযোগ করা হয় হলের ব্যবস্থাপক মো. হাসানের সঙ্গে। তিনি চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, করোনার কারণে মার্চে হল বন্ধের ঘোষণার পর শ্যামলী বন্ধ হয়ে যায়। এরপর প্রায় ৯ মাসের মতো হলটি বন্ধ। স্বাভাবিক কারণেই প্রথম দিনে তুলনামূলক খুব বেশি দর্শক আসেনি। তবে পরিস্থিতি একটু স্বাভাবিক হলে এবং শ্যামলী খুলে যাওয়ার সংবাদটি নিয়মিত দর্শকরা পেলে হয়তো দর্শক আসতে শুরু করবে।

তিনি বলেন, শনিবার শ্যামলী সিনেমা হলের যিনি মালিক আছেন, তার বড় বোন মারা গেছেন। এ কারণে এক দিনের জন্য আমরা সিনেমা হলটি বন্ধ রাখছি। রবিবার থেকে আবার নিয়মিত চলবে।

নারায়ণগঞ্জের সিনেস্কোপে চলছে ‘বিশ্বসুন্দরী’

নারায়ণগঞ্জের অত্যাধুনিক সিনেস্কোপে চলছে ‘বিশ্বসুন্দরী’। এই মিনি থিয়েটারের কর্ণধার নুরুজ্জামান চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, প্রথম দিনে আমরা খুব ভালো সাড়া পেয়েছি। সাম্প্রতিক সময়ে এতো দর্শক খুব কম দেখেছি।

ঢাকার মধ্যে ছবিটি মুক্তি পেয়েছে স্টার সিনেপ্লেক্স, যমুনা ব্লকবাস্টার, শ্যামলী সিনেমা হল, চিত্রামহল, আনন্দ এবং সৈনিক ক্লাবে।

‘বিশ্বসুন্দরী’ ছবিতে প্রথমবার দেখা যাবে পরীমনি-সিয়াম জুটিকে। এছাড়াও অভিনয় করেছেন আলমগীর, চম্পা, ফজলুর রহমান বাবু, মনিরা মিঠু, আনন্দ খালেদ, হীরা, সুজন, সীমান্ত সহ আরো অনেকে। ছবির কাহিনী, চিত্রনাট্য, সংলাপ লিখেছেন রুম্মান রশীদ খান।