চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘তুই যে আমার ও আমাদের কী, আজ তা টের পেলাম বন্ধু’

ছোটপর্দার জনপ্রিয় অভিনেতা কল্যাণ কোরাইয়া তার সহকর্মীদের কাছে খুব কাছের বন্ধু। কারো কাছে তিনি ছোট ভাইয়ের মতো। সম্প্রতি তিনি প্রথম আলোর প্রধান আলোকচিত্র সাংবাদিক জিয়া ইসলামকে গাড়িচাপা দেয়ার মামলায় জামিন পেয়েছেন।

জেলহাজতে থাকার সময় দীর্ঘদিন একসঙ্গে কাজ করা অভিনেত্রী নওশিন, মৌসুমী নাগ ও রুনা তার পাশে ছিলেন। সাহস যুগিয়েছেন তার পরিবারকে।

বিজ্ঞাপন

কল্যাণের জামিন হওয়ার পর আবেগ-আপ্লুত হয়ে ছোটপর্দার প্রিয় মুখ নওশিন তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে কল্যাণের উদ্দেশ্যে লিখেছেন,‘তুই যে আমার ও আমাদের কী ,আজ তা টের পেলাম বন্ধু। তোর কান্না তোর করুণ চেহারা আর দেখতে চাই না।

বিজ্ঞাপন

ভালোবাসি বলে লেখাটা লিখতে গিয়ে চোখ থেকে অঝোর পানি পড়ছে যেমনটা ঝরছিলো তোকে দেখে, তোর আওয়াজ শুনে, তোরে জড়িয়ে ধরার পর। বন্ধু তুই অনেক ভালো থাকবি, অনেক ভালো। আমি আছি পাশে, আমরা আছি তোর সাথে। তোর কাছের মানুষগুলো আছে আজীবন তোর সাথে।

অন্যদিকে আহত জিয়াকে সহমর্মিতা জানিয়ে নওশিন লিখেছেন, জিয়া ভাই জলদি সুস্থ হয়ে ফিরে আসুন। আপনার সাথে সাক্ষাতকারের অপেক্ষায় আমরাও আছি। শিল্পী কিংবা কল্যাণের বন্ধু হিসেবে নয়, একজন মানুষ হিসেবে আপনার মঙ্গল ও সুস্থতার জন্য দোয়া করি। ফিরে আসেবন ভাই।

গত ৯ জানুয়ারি রাতে রাজধানীর পান্থপথে গুরুতর আহত হন দৈনিক প্রথম আলোর ফটো সাংবাদিক জিয়া ইসলাম। পরে এ ঘটনায় কলাবাগান থানায় মামলা করেন দৈনিক প্রথম আলোর নিরাপত্তা ব্যবস্থাপক মেজর (অব.) সাজ্জাদুল কবীর। মামলায় জিয়াকে গাড়ি চাপা দেয়ার অভিযোগে গ্রেফতার অভিনেতা-মডেল কল্যাণ কোরাইয়াকে আদালতে হাজির করে তিন দিনের রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ। আদালত কল্যাণ কোরাইয়ার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তিন দিনের মধ্যে তাকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ দিয়েছিলেন। সম্প্রতি জামিনে মুক্ত হয়েছেন কল্যাণ।