চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ঢাকা লিগে হাত মেলাতে মানা

রোববার মাঠে গড়াবে ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগ। অংশ নেবে রাজধানীর শীর্ষ ১২টি ক্লাব। অন্যান্য দেশের মতো করোনা ভাইরাস এড়াতে মাঠে খেলোয়াড়দের মাঝে হাত মেলানোর অভ্যাসকে নিরুৎসাহিত করছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। খেলোয়াড়-কোচ-কর্মকর্তাদের জন্য কাজ করবে বিসিবির মেডিকেল টিম।

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গন স্থবির হয়ে পড়েছে। প্রাণঘাতী ভাইরাসটি যেন না ছড়ায় সেজন্য সতর্কতার অংশ হিসেবে বিসিবি স্থগিত করেছে মুজিববর্ষের বিশ্ব একাদশ-এশিয়া একাদশের মধ্যকার টি-টুয়েন্টি সিরিজ। তবে ঘরোয়া ক্রিকেট সূচি অনুযায়ী চালু রাখছে বিসিবি।

প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচ দেখতে এমনিতেই মাঠে তেমন দর্শক হয় না। খুব বেশি জনসমাগম হওয়ার সম্ভাবনাও নেই। ব্যতিক্রম দেখা গেলে অবশ্য দর্শক সীমিত করে ফেলবে বিসিবি। বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ের টি-টুয়েন্টি সিরিজে কম টিকেট ছেড়ে দর্শকদের মাঠে আসতে অনুৎসাহিত করা হয়েছিল।

বিজ্ঞাপন

শনিবার সংবাদ সম্মেলন করে প্রিমিয়ার লিগের পৃষ্ঠপোষকের নাম ঘোষণা করে বিসিবি। এবারও ওয়ালটন গ্রুপ থাকছে ঘরোয়া ক্রিকেটের সবচেয়ে জমজমাট আসরটির সঙ্গে। সংবাদ সম্মেলনে উঠে আসে করোনা ভাইরাস প্রসঙ্গ।

বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী জানান করোনা-ঝুঁকি থেকে খেলোয়াড়দের রক্ষা করতে নেয়া হয়েছে ব্যবস্থা, ‘করোনা ভাইরাসকে বিবেচনায় রেখে সরকার যে সমস্ত পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে ও মেডিক্যাল অ্যাডভাইজরি দিচ্ছে সেগুলো আমরা অনুসরণ করবো। আমরা এরই মধ্যে ক্লাবগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ করেছি এবং আজ একটি টিম মিটিং আছে। বিসিবি থেকে এটা নিশ্চিত করা হবে যদি কোনো খেলোয়াড় বা অফিসিয়াল সামন্যতম অসুস্থ বা লক্ষণ দেখা যায় তাৎক্ষণিক যেন বিসিবির মেডিকেল টিম এবং ক্লাবকে জানায়। ক্লাব যেন আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে। আমরা সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নেব।’

‘এর বাইরে হ্যান্ডসেকের যে রীতি আছে….সেটা কীভাবে কমিয়ে করা যায়। আমরা যেহেতু অভ্যস্ত হয়ে আছি…সেই বিষয়টি মাথায় রেখে এখন যেটা প্র্যাকটিস হচ্ছে এখন, সবদিক বিবেচনা করে আমরা হ্যান্ডশেককে নিরুৎসাহিত করব। এছাড়া দর্শকদের ব্যাপারে যেটা বলা হয়েছে সেটা আমাদের আন্তর্জাতিক ম্যাচে বিবেচনার বিষয় ছিল। লিগের ম্যাচে হয়তো সেটি প্রয়োজন হবে না। তারপরও আমরা বিষয়টিকে গুরুত্ব সহকারে দেখব।’

বিজ্ঞাপন