চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ট্রাম্প জানানোর আগেই চুক্তির বিষয়বস্তু গণমাধ্যমে ফাঁস

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নর্থ কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে সই হওয়া চুক্তি সম্পর্কে সংবাদ সম্মেলন করে জানানোর আগেই চুক্তির বিষয়বস্তু ফাঁস হয়ে গেছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে।

চুক্তিতে যুক্তরাষ্ট্র ও নর্থ কোরিয়া কোরীয় উপদ্বীপকে সম্পূর্ণভাবে পারমাণবিক অস্ত্রমুক্ত করতে কাজ করার জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়েছে। একই সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র ও নর্থ কোরিয়ার মাঝে নতুন সহযোগিতামূলক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠা করতে দুই দেশের নেতারা কাজ করবেন বলেও চুক্তিপত্রে ইঙ্গিত দেয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার ঐতিহাসিক বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের সামনে চুক্তিতে সই করার পর চুক্তিপত্রটি উঁচিয়ে ধরেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। সেই উঁচিয়ে ধরা চুক্তিপত্রের ক্লোজআপ ছবি বিশ্লেষণ করেই এ তথ্য প্রকাশ করেছে রয়টার্স, সিএনএনসহ বেশ কিছু গণমাধ্যম। টুইটারেও চুক্তির বিষয়বস্তু একইভাবে প্রকাশিত হয়েছে।

চুক্তিপত্রে বলা হয়েছে, ডোনাল্ড ট্রাম্প ও নর্থ কোরীয় নেতা কিম জং উন বিশ্বাস করেন, নতুন যুক্তরাষ্ট্র-নর্থ কোরিয়া সম্পর্ক কোরীয় উপদ্বীপসহ সারা বিশ্বের শান্তি ও সমৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখবে। একই সঙ্গে পারস্পরিক বিশ্বাস তৈরির মধ্য দিয়ে কোরীয় উপদ্বীপে পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণ প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত হবে।নর্থ কোরিয়া-কিম জং উন-ডোনাল্ড ট্রাম্প

এ কারণে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ও চেয়ারম্যান কিম ৪ টি পয়েন্টে অঙ্গীকারাবদ্ধ হয়েছেন:

Advertisement

১. যুক্তরাষ্ট্র ও নর্থ কোরিয়া দুই দেশের জনগণের শান্তি ও সমৃদ্ধির আকাঙ্ক্ষার কথা মাথায় রেখে নতুন মার্কিন-নর্থ সম্পর্ক গড়বে।

২. কোরীয় উপদ্বীপ অঞ্চলে টেকসই ও স্থিতিশীল শান্তি কায়েমের উদ্দেশ্যে যুক্তরাষ্ট্র ও নর্থ কোরিয়া একসঙ্গে চেষ্টা চালিয়ে যাবে।

৩. ২৭ এপ্রিল, ২০১৮’র পানমুনজাম ঘোষণাপত্রের প্রতি আবারও সমর্থন জানিয়ে নর্থ কোরিয়া কোরীয় উপদ্বীপে পূর্ণ পরমাণু নিরস্ত্রীকরণের জন্য কাজ করার প্রতিজ্ঞা করছে।

৪. যুক্তরাষ্ট্র ও নর্থ কোরিয়া দু’পক্ষের কাছে থাকা একে অপরের বন্দী নাগরিক এবং নিখোঁজ ব্যক্তিদের খুঁজে বের করার অঙ্গীকার করছে।নর্থ কোরিয়া-কিম জং উন-ডোনাল্ড ট্রাম্প

এর আগে মঙ্গলবার স্থানীয় সময় দুপুরে সিঙ্গাপুরের সেনতোসা দ্বীপে একসঙ্গে মধ্যাহ্ন ভোজের পর আয়োজিত ব্রিফিং অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের সামনেই বিশেষ চুক্তিতে সই করেন ট্রাম্প-কিম। তবে চুক্তিপত্রটিতে আসলে যে কী লেখা আছে, তা নিয়ে বিকেলে সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত আলোচনা করার কথা বলেন ট্রাম্প।