চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ
Partex Group

টিভি তারকাদের নির্বাচন: লড়বেন ৪৮ জন অভিনয়শিল্পী

২৮ জানুয়ারি ‘টেলিভিশন অভিনয়শিল্পী সংঘ’র নির্বাচন

বিজ্ঞাপন

নির্বাচন নিয়ে সরগরম গোটা শোবিজ অঙ্গন। আসছে ২৮ জানুয়ারি এফডিসিতে চলচ্চিত্রের অভিনয়শিল্পীদের সংগঠন ‘বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি’র নির্বাচন। একইদিনে শিল্পকলা একাডেমিতে চলবে ছোটপর্দার শিল্পীদের সংগঠন ‘টেলিভিশন অভিনয়শিল্পী সংঘ’ এরও নির্বাচন।

একইদিনে দুই মাধ্যমের অভিনয় শিল্পীদের নির্বাচন হলেও সংবাদ শিরোনামে বড় পর্দার শিল্পীদের নির্বাচন। মনোনয়ন জমা দেয়ার দিন থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে গণমাধ্যমেও তাদের নিয়ে চলছে মাতামাতি। সেই তুলনায় একেইবারেই আলোচনায় নেই টেলিভিশন অভিনয় শিল্পীদের নির্বাচন।

pap-punno

এ বিষয়ে ‘টেলিভিশন অভিনয় শিল্পী সংঘ’র বিগত কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও আসন্ন নির্বাচনে সভাপতি পদপ্রার্থী আহসান হাবিব নাসিম চ্যানেল আই অনলাইনকে বলেন, আমাদের নির্বাচন প্রক্রিয়াটা একেবারে ভিন্ন। শিল্পী সংঘের নির্বাচন প্যানেলভিত্তিক হয় না, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন নাট্যাঙ্গনের শিল্পীরা।

তিনি বলেন, প্যানেল ভিত্তিক না হওয়ায় অভিনয় শিল্পীরা ব্যক্তিগতভাবে প্রচারণা চালাচ্ছেন। তবে পোস্টার ছাপানো বা এরকম কোনো বিষয় শিল্পীরা করছেন না।

নাসিম জানান, যারা মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন, তাদের কারো মনোনয়ন বাতিল হয়নি। তবে তাদের মধ্যে তানভীন সুইটি এবং হাসান জাহাঙ্গীর তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন।

২১ জনের কমিটিতে স্থান পেতে এরই মধ্যে প্রার্থীরা তাদের প্রচারণা শুরু করেছেন। নাসিম জানান, মোট ৪৮ জন এবারের নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন।

Bkash May Banner

টেলিভিশন অভিনয় শিল্পী সংঘের নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করছেন খায়রুল আলম সবুজ। চ্যানেল আই অনলাইনকে বুধবার দুপুরে তিনি বলেন, কারা কোন পদে প্রার্থী হচ্ছেন, তা বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করা হলে জানতে পারবেন।

প্রাথমিক ও পূর্ণাঙ্গ মিলিয়ে অভিনয়শিল্পী সংঘের বর্তমান সদস্য সংখ্যা ১ হাজার ১০০। পূর্ণাঙ্গ ৯০০ সদস্যের মধ্যে ৬০ জনের বেশি মারা গেছেন। বেশ কয়েকজন থাকেন দেশের বাইরে।

এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনার জানান, এ বছর নির্বাচনে ৭৫১ জন সদস্য ভোট দেওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন।

২৮ জানুয়ারি নির্বাচনকে সামনে রেখে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে জানিয়েছেন খায়রুল আলম সবুজ। এমনকি কোভিড পরিস্থিতির অবনতি হওয়ার বিষয়টিও মাথায় রেখে কাজ করছেন বলে জানান এই প্রবীন অভিনেতা।

যারা প্রার্থী হচ্ছেন:

সভাপতি পদে আহসান হাবিব নাসিমের মুখোমুখি হচ্ছেন শাহাদাৎ হোসেন নিপু। সাধারণ সম্পাদক পদে লড়ছেন রওনক হাসান ও কবীর টুটুল। সহ-সভাপতি তিনটি পদের বিপরীতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন- তানিয়া আহমেদ, আনিসুর রহমান মিলন, দিলু মজুমদার, সেলিম মাহবুব ও ইকবাল বাবু। দুটি যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদের বিপরীতে প্রার্থী হয়েছেন নাজনীন হাসান চুমকি, শামীমা তুষ্টি ও জামিল হোসেন। সাংগঠনিক সম্পাদক পদের জন্য লড়বেন সাজু খাদেম, তুষার মাহমুদ ও জুলফিকার চঞ্চল। অর্থ সম্পাদক পদে প্রার্থী হয়েছেন সায়েম সামাদ ও নূর এ আলম নয়ন। দপ্তর সম্পাদক পদে প্রার্থী হয়েছেন শেখ মিরাজুল ইসলাম ও কবি মামুন। অনুষ্ঠান সম্পাদক পদে প্রার্থী হয়েছেন নিথর মাহবুব ও রাশেদ মামুন অপু। আইন ও কল্যাণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হয়েছেন ঊর্মিলা শ্রাবন্তী কর ও রওনক বিশাকা শ্যামলী। প্রচার ও প্রকাশনা পদে প্রার্থী হয়েছেন প্রাণ রায় ও মুকুল সিরাজ। তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক পদে প্রার্থী হয়েছেন আবুল কালাম আজাদ, মাহাদী হাসান পিয়াল ও সুজাত শিমুল।

কার্যনির্বাহী সদস্য ৭টি পদের জন্য প্রার্থী হয়েছেন আইনুন নাহার পুতুল, আবুল কালাম আজাদ মিয়া, আশরাফ কবির, আশরাফুল আশীষ, গোলাম কিবরিয়া তানভীর, রাজীব সালেহীন, নূরুন নাহার বেগম, মিষ্টি মারিয়া, তানভীর মাসুদ, মাজনুন মিজান, মো. আবদুল হান্নান আখন্দ, মো. আমিনুল বারী, মৌসুমী হামিদ, রেজাউল রাজু, শামস সুমন, শ্যামল জাকারিয়া, স্মরণ কুমার সাহা, সংগীতা চৌধুরী, সূচনা সিকদার ও হিমে হাফিজ।

বিজ্ঞাপন

Bellow Post-Green View
Bkash May offer