চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

টিভির সংবাদে বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন চলবে

দেশের বেসরকারি টেলিভিশনের সংবাদ শিরোনাম ও সংবাদের বিভিন্ন অংশে বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন (স্পন্সর) প্রচারে হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা স্থাগিত করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

এই আদেশের ফলে টেলিভিশন সংবাদের বিভিন্ন অংশে বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন আপাতত চলবে বলে জানিয়েছেন বিটিআরসির আইনজীবী।

বিজ্ঞাপন

এর আগে হাইকোর্টের দেয়া এ সংক্রান্ত রায়ের বিরুদ্ধে বিটিআরসি, চ্যানেল আই ও দীপ্ত টেলিভিশনের করা লিভ-টু আপিলের (আপিলের অনুমতি চেয়ে আবেদন) শুনানি নিয়ে রোববার প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন চার বিচারপতির বেঞ্চ এই আদেশ দেয়।

বিজ্ঞাপন

সেসময় দেশের সর্বোচ্চ আদালত বলেন, ‘চ্যানেল আইয়ের সংবাদে অত ঘন ঘন বিজ্ঞাপন প্রচার হয় না। সংবাদে প্রায় ১৫ মিনিট পর বিজ্ঞাপন দেখা যায়।’

বিজ্ঞাপন

আদালতে চ্যানেল আইয়ের পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ এম আমিন উদ্দিন। দীপ্ত টেলিভিশনের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মুরাদ রেজা। মাছরাঙা টিভির পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মো. আসাদুজ্জামান। আর বিটিআরসির পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার খন্দকার রেজা-ই রাকিব।

এই আদেশের পর চ্যানেল আইয়ের আইনজীবী এ এম আমিন উদ্দিন বলেন, ‘শুনানিতে আদালতকে বলেছি টেলিভিশনগুলোর আয়ের উৎসই হচ্ছে তাদের বিজ্ঞাপন। সেটা যদি বন্ধ হয়ে যায়, তাহলে অনেক টিভি চ্যানেল টিকে থাকতে পারবে না। আর বিজ্ঞাপন সংক্রান্ত যে আইন আছে তা আমরা আদালতের কাছে তা তুলে ধরেছি। আদালত এসব বিষয় বিবেচনা করে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত করেছেন।’

টেলিভিশনের সংবাদ শিরোনাম ও সংবাদের বিভিন্ন অংশে বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের স্পন্সর প্রচার নিয়ে ২০১১ সালে হাইকোর্টে একটি রিট করা হয়। সে রিটের শুনানি নিয়ে রুল জারি করেন হাইকোর্ট।

ওই রুলের চুড়ান্ত শুনানি নিয়ে টেলিভিশন সংবাদের বিভিন্ন অংশে বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের স্পন্সর প্রচারে নিষেধাজ্ঞা দেন হাইকোর্ট।

এরপর হাইকোর্টের ওই রায়ের বিরুদ্ধে লিভ-টু আপিল করে বিটিআরসিসহ টিভি চ্যানেলগুলো। এই লিভ টু আপিল নিস্পত্তির আগ পর্যন্ত হাইকোর্টের রায় স্থাগিত করলেন দেশের সর্বোচ্চ আদালত।