চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

টস না থাকলে বাংলাদেশের লাভ না ক্ষতি?

সাদা পোশাকের ক্রিকেটে টস না থাকলে বাংলাদেশ তথা এশিয়ার দেশগুলো বিপাকে পড়তে পারে।

স্বাগতিক দল হোম কন্ডিশনের যে সুবিধা নিয়ে থাকে, তা কমাতেই টসপ্রথা তুলে দেওয়ার কথা ভাবছে আইসিসির কমিটি। টসপ্রথার বিকল্প পদ্ধতিও বের করা হয়েছে। যে দল প্রতিপক্ষের মাঠে খেলবে, তারা সিদ্ধান্ত নেবে আগে ব্যাটিং না বোলিং করবে। এই নিয়ম চূড়ান্ত করতে আরেকবার আলোচনায় বসার কথা জানিয়েছে আইসিসি।

বিজ্ঞাপন

দক্ষিণ এশিয়ার দেশ ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা এবং বাংলাদেশ উপমহাদেশের বাইরের দলগুলোর জন্য সাধারণত স্পিনিং উইকেট বানায়। টস না থাকলে সেটি করা বুমেরাং হয়ে যাবে।

টেস্টে সাম্প্রতিক সময়ে ঘরের মাঠে জিততে শুরু করেছে বাংলাদেশ। এই মুহূর্তে টস তুলে দিলে স্বাগতিক হওয়ার সুবিধাটুকুও হারাবে টাইগাররা।

বিজ্ঞাপন

সাবেক অধিনায়ক হাবিবুল বাশার বলছেন, ‘আমি মনে করি না এই সিদ্ধান্ত ভালো কিছু হবে। ঐতিহ্যবাহী একটা নিয়ম তুলে দেয়ার পক্ষে আমি নই। অবশ্যই টস গুরুত্বপূর্ণ একটা বিষয়। ’

ভারতের সাবেক অধিনায়ক বিষেন সিং বেদি টাইমস অব ইন্ডিয়াকে বলেন, ‘শত বছরের ঐতিহ্যকে কেন বাতিল করতে হবে? এতে ক্ষতি হবে।’

বেদির সতীর্থ দিলীপ ভেংসরকার বলেন, ‘এটা যদি শুধু মাত্র স্বাগতিক দেশের সুবিধা কমাতে করা হয়, তাহলে নিরপেক্ষ পিচ কিউরেটরের ব্যবস্থা করুন। আইসিসির আম্পায়ারদের এলিট প্যানেলের মতো কিউরেটরদের প্যানেল থাকবে।’

দিলীপ মনে করেন, টস থাকলে প্রতিযোগিতায় বরং সমতা থাকে।

এশিয়ার আরেক সাবেক অধিনায়ক পাকিস্তানের আসিফ ইকবালও টস বাতিল করার বিরোধিতা করেছেন। তিনি বলেন, ‘সবাই দেশের মাঠে খেলে। আবার অন্যের মাঠেও খেলে। সেরা হতে হলে সব জায়গায় জিততে হবে। এখানে টস বাতিল করার প্রসঙ্গ আনবে কেন।’