চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

জাভিকে বার্সার ‘ফার্গুসন’ বানাতে চান প্রেসিডেন্ট প্রার্থী

বার্সেলোনার প্রেসিডেন্ট হতে পারলে জাভি হার্নান্দেজকে ভবিষ্যতে লম্বা সময়ের জন্য ক্লাবের কোচের পদে দেখা যাবে, এমন নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন ভিক্টর ফন্ট। একইসঙ্গে অধিনায়ক লিওনেল মেসিকে ক্লাবে ধরে রাখার আশ্বাসও দিয়েছেন এ প্রেসিডেন্ট প্রার্থী।

আগামী ১৪ জানুয়ারি হবে বার্সার প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থাপনায় একজন সফল উদ্যোক্তা হিসেবে খ্যাতি কুড়ানো ভিক্টর ফন্ট সভাপতির দৌড়ে বেশ এগিয়ে আছেন। সাক্ষাৎকারে ৪৮ বছর বয়সী ফন্ট জানিয়েছেন, বর্তমান কোচ রোনাল্ড কোম্যানের অধীনেই সহকারী কোচ হিসেবে জাভিকে ন্যু ক্যাম্পে ফিরিয়ে আনা হতে পারে। বর্তমানে কাতারের ক্লাব আল সাদের দায়িত্বে আছেন ৪০ বছর বয়সী স্পেন ও বার্সা কিংবদন্তি।

বিজ্ঞাপন

‘কয়েক বছর আগেই আমরা ঠিক করেছি যে, বার্সার হারানো গৌরব ফিরিয়ে আনতে হলে আমাদের জাভিকেই দরকার।’

১৯৮৬ সালে দায়িত্ব নেয়ার পর ২৬ বছর ধরে ম্যানইউর কোচের পদ সামলে অবসরে যান স্যার অ্যালেক্স ফার্গুসন। ২৬ বছরে ৩৮ শিরোপা জিতেছেন কিংবদন্তি স্কটিশ কোচ। যার মধ্যে ১৩ প্রিমিয়ার লিগের সঙ্গে আছে ২টি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ।

বার্সার কিংবদন্তি মিডফিল্ডারের মধ্যে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের কিংবদন্তি কোচ অ্যালেক্স ফার্গুসনের ছায়া দেখতে পান ফন্ট, ‘আসলে আমরা জাভিকে ম্যানইউর ফার্গুসনের মতো লম্বা সময় ধরে দায়িত্বে রাখতে চাই।’

বিজ্ঞাপন

‘এর বাইরে জাভি যদি ভিন্ন কিছু করতে চায়, তাতেও ছাড় পাবে। কারণ তার মতো নেতৃত্বগুণ খুব কম মানুষের আছে।’

জাভি দায়িত্ব নিয়ে পেপ গার্দিওলার মতো হবেন না বলে মনে করেন ফন্ট। চার মৌসুমে বার্সাকে তিন লা লিগা ও দুই চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতিয়ে দায়িত্ব ছেড়ে দেন ক্লাবেরই সাবেক মিডফিল্ডার ও কিংবদন্তি কোচ গার্দিওলা।

‘আমি জাভিকে বলেছি, আমরা পেপের মতো আরেকটা ধাক্কার সম্মুখীন হতে চাই না। আমরা জাভিকে অন্তত ১০ বছরের জন্য দায়িত্বে চাই।’

‘জাভির নিজেরও লম্বা সময় ধরে কাজ চালিয়ে যাওয়ার ইচ্ছা আছে। তার বয়স মাত্র ৪০। কিছুদিন আগে আমাকে বলেছে, সে একজন কোচ হিসেবে যতটা সম্ভব তার ক্যারিয়ারকে লম্বা করতে চায়।’

প্রেসিডেন্ট হতে পারলে মেসিকে ধরে রাখার সবরকম চেষ্টাই করবেন ফন্ট। খুব অল্প সময়ে আর্জেন্টাইন অধিনায়ককে বুঝিয়ে ক্লাবে ধরে রাখা বেশ শক্ত কাজ বলেও শঙ্কা প্রকাশ করেছেন। সঙ্গে মেসি ক্লাব ছাড়লে ভবিষ্যতে যেন যেকোনো ভূমিকায় সম্মানের সঙ্গে ফিরতে পারেন সেই পথও খোলা থাকবে বলে কথা দিয়েছেন ফন্ট।