চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

জাতীয় কবির জয়ন্তীতে মানবতা ও সাম্যের জয়গান

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১শ’ ১৬তম জন্মবার্ষিকী আজ। প্রেম, দ্রোহ, মানবের মুক্তি এবং বিদ্রোহের সুর ও বাণীতে আজীবন সাম্যের কথা বলে গেছেন মানবতাবাদী কবি নজরুল।

নজরুলের গানের ভাণ্ডার সংরক্ষণের পাশাপাশি অসাম্প্রদায়িক চেতনা বিশ্বময় ছড়িয়ে দিতে তার রচনাবলীর অনুবাদ হওয়া জরুরি মনে করেন গবেষকরা।

বিজ্ঞাপন

১১ জ্যৈষ্ঠ ১৩০৬ বঙ্গাব্দে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান জেলার চুরুলিয়া গ্রামের এক দরিদ্র পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন কাজী নজরুল ইসলাম। মাত্র ৯ বছর বয়সে পিতৃহারা হয়ে স্থানীয় মসজিদে আযান দেওয়ার কাজে নিয়োজিত হন দুখু মিয়া বলে পরিচিত নজরুল ইসলাম।

১০ বছর বয়সে লেটো গানের দলে যোগ দিয়ে সঙ্গীত রচনার কাজে নিয়োজিত হন তিনি। জীবনের অভাব ঘুঁচাতে তাকে কাজ করতে হয়েছে রুটির দোকানে। সেখান থেকে এক দারোগা নজরুলকে ভর্তি করে দেন ময়মনসিংহের ত্রিশালের দরিরামপুরের এক স্কুলে।

মাধ্যমিক পরীক্ষা না দিয়েই সৈনিক জীবন শুরু করেন তিনি। অংশ নেন প্রথম বিশ্বযুদ্ধে।

১৯২০ সালে নবযুগ পত্রিকায় কাজ করার মধ্য দিয়ে শুরু করেন সাংবাদিকতা। ‘মুহাজিরীন হত্যার জন্য দায়ী কে?’ প্রবন্ধের জন্য বাজেয়াপ্ত হয় পত্রিকার জামানত।

দেশজুড়ে অসহযোগ আন্দোলনের বিপুল উদ্দীপনায় সক্রিয় রাজনৈতিক কর্মী হিসেবে আবির্ভূত হন নজরুল। কবিতা গান ও প্রবন্ধে ফুটে ওঠে নজরুলের বিদ্রোহী ভাব।

বিজ্ঞাপন

কবি, সাহিত্যিক, গল্পকার, সাংবাদিক, সম্পাদক, সংগীতজ্ঞ, দার্শনিক, নাট্যকার সাহিত্যের এমন নানা শাখায় বিচরণ করে নিজের স্বাতন্ত্র্যতা প্রতিষ্ঠা করে গেছেন কাজী নজরুল ইসলাম।

ইসলামী সঙ্গীত বা গজল রচনার পাশাপশি শ্যামাসঙ্গীত ও হিন্দু ভক্তিগীতি রচনায় সিদ্ধহস্ত হয়ে রচনা করনে প্রায় তিন হাজার গান। ধর্ম সঙ্গীতকে নজরুল ধর্মের দিক থেকে দেখেন নাই মন্তব্য করে নজরুল গবেষক অধ্যাপক ডক্টর মাহবুবুল হক বলেন, “তিনি মানবতার কথা, মানুষের মুক্তির কথা, মানুষকে ভালোবাসার কথা, মানুষের প্রেমের কথা, স্বাধীনতার কথা বলেছেন।

বিশ্বে সাম্প্রদায়িকতা, জঙ্গিবাদ, মৌলবাদের বিস্তার ঘটছে উল্লেখ করে মাহবুবুল হক বলেন, “এই জায়গায় মানুষের কথা বলতে হবে। সকল ধর্মের মানুষইতো মানুষ। সেই কথা নজরুল বলেছিলেন, তা নতুন করে বলার এবং তার কাছ থেকে প্রেরণা নিয়ে নতুন নতুন সাহিত্য রচনার জন্য আমাদের এগিয়ে আসতে হবে।”

সাম্যবাদ ও অসাম্প্রদায়িক চেতনা প্রতিষ্ঠা করতে আজীবন লড়েছেন নজরুল। তার প্রমাণ রাখতেই হিন্দু -মুসলিম নামের সমন্বয়ে চার সন্তানের নাম রাখেন কৃষ্ণ মুহাম্মদ, অরিন্দম খালেদ, কাজী সব্যসাচী ও কাজী অরিন্দম।

ডক্টর মাহবুবুল হক বলেন, নজরুলের জীবনি এখনো পূর্ণাঙ্গ হয়তো রচিত হয় নাই। নজরুলের রচনার অনুবাদ হওয়া দরকার এবং বিশ্ব পর্যায়ে তাকে ছড়িয়ে দেয়া দরকার বলে দাবি করেন এই নজরুল গবেষক। তিনি বলেন, সেই অনুবাদটা একটু কঠিন কিন্তু সেই কঠিন কাজটাতো করতে হবে। সেটা যদি করা হয় তাহলে নিশ্চয়ই আমরা অনেক অগ্রগতি লক্ষ্য করবো।

মাত্র ৪৩ বছর বয়সে দূরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত হন মানবপ্রেমের এ কবি। বাকশক্তির সঙ্গে হারিয়ে ফেলেন মানসিক ভারসাম্যও। ১২ ভাদ্র ১৩৮৩ সম্পূর্ণরূপে স্তব্ধ হয়ে যায় কবির কলম।

স্বাধীনতার পর সপরিবার নজরুলকে বাংলাদেশে নিয়ে আসা হয়। দেওয়া হওয়া নাগরিকত্ব।

বাংলা সাহিত্য ও সংস্কৃতিতে বিশেষ অবদানের জন্য ১৯৭৪ সালে তাকে সম্মানসূচক ডি.লিট উপাধি দেয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। মৃত্যুর কিছুদিন আগে সাম্যের কবিকে একুশে পদকে ভূষিত করে রাষ্ট্র।

Bellow Post-Green View