চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘ছুটির ঘণ্টা’ নির্মাতার মরদেহ দেশে আসছে রবিবার

প্রথম জানাজা হবে এফডিসিতে, দাফন হবে নির্মাতার গ্রামের বাড়ি সান্তাহারে

রবিবার (২০ মার্চ) দুপুরে কানাডার টরেন্টো থেকে ঢাকায় পৌঁছাবে কালজয়ী চলচ্চিত্র ‘ছুটির ঘণ্টা’ সহ বেশকিছু দর্শকপ্রিয় ছবির নির্মাতা আজিজুর রহমানের মরদেহ।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নির্মাতার মেয়ে বিন্দি রহমান এমনটাই জানিয়েছেন। শনিবার সকালে বিন্দি জানান, আজিজুর রহমানের মরদেহ রবিবার (২০ মার্চ) দুপুর সোয়া ১টার দিকে কানাডা থেকে ঢাকায় পৌঁছাবে। তিনি জানান, প্রথম জানাজা বাদ আছর (৪:৩০) এফডিসি প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হবে। দ্বিতীয় জানাজা বাদ এশা (৮:০০) ধানমন্ডির বায়তুল আমান জামে মসজিদে অনুষ্ঠিত হবে।

Reneta June

সোমবার সকালে আজিজুর রহমানের মরদেহ গ্রামের বাড়ী সান্তাহারে নিয়ে যাওয়া হবে, এবং বাদ যোহর জানাজা শেষে পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হবে।

বিজ্ঞাপন

গেল সোমবার (১৪ মার্চ) বাংলাদেশ সময় রাত ১১টা ২০ মিনিটে কানাডার টরেন্টোর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বর্ষীয়ান এই চিত্রনির্মাতা শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

আজিজুর রহমান ১৯৩৯ সালের ১০ অক্টোবর বগুড়ার সান্তাহারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম রুপচাঁন প্রামানিক। তিনি স্থানীয় আহসানুল্লাহ ইনস্টিটিউট থেকে এসএসসি পাস ও ঢাকা সিটি নাইট কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেছেন। চারুকলা আর্ট ইনস্টিটিউটে কমার্সিয়াল আর্টে ডিপ্লোমা করেছেন।

অনেক সফল চলচ্চিত্রের পরিচালক আজিজুর রহমান। ১৯৫৮ সালে ‘এ দেশ তোমার আমার’ চলচ্চিত্রে এহতেশামের সহকারী হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করেন। তার নির্মিত প্রথম চলচ্চিত্র ময়মনসিংহের লোককথা নিয়ে ‘সাইফুল মূলক বদিউজ্জামান’। মুক্তি পায় ১৯৬৭ সালে।

তিনি অর্ধশতাধিক চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছেন। এগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- ছুটির ঘণ্টা, অশিক্ষিত, মাটির ঘর, জনতা এক্সপ্রেস, সাম্পানওয়ালা, ডাক্তার বাড়ি, গরমিল ও সমাধান ইত্যাদি।