চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘ছুটির’ আমেজে টিম টাইগার্স

টন্টন থেকে: ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচ খেলতে টন্টনে আসা বাংলাদেশ এখনও একত্রিত হয়ে উঠতে পারেনি। ম্যাচের আগে ৫ দিনের লম্বা বিরতি থাকায় ক্রিকেটারদের ঐচ্ছিক ছুটি দেয়া হয়েছে। সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল ব্রিস্টল থেকেই ছুটিতে চলে গেছেন দুই দিনের জন্য।

সাব্বির রহমান ও মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত একদিন ছুটি কাটিয়ে বুধবার রাতে (বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার সকাল) ফিরেছেন টিম হোটেলে। দলের বাকিরা ছুটি না কাটালেও ছিলেন বিশ্রামে। বৃহস্পতিবারও নেই বাংলাদেশ দলের বাধ্যতামূলক অনুশীলন। তবে ঐচ্ছিক অনুশীলন চলবে। টাইগার দলের অনুশীলনের যে সূচি পাঠিয়েছে বিসিবি তা শুরু শুক্রবার থেকে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বুধবার দুপুরে ব্রিস্টল থেকে টন্টনে পৌঁছান দলের ১১ ক্রিকেটার। এদিন অনুশীলন না থাকায় টিম হোটেলেই কেটেছে তাদের সময়। রাতের খাবার খেতে একত্রে বের হয়েছিলেন রুবেল হোসেন, সৌম্য সরকার, মোস্তাফিজুর রহমান, আবু জায়েদ রাহি, মেহেদী হাসান মিরাজ। টিম বাসে তাদের সঙ্গে ছিলেন দলের ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ সুজন, কম্পিউটার অ্যানালিস্ট শ্রীনিবাস চন্দ্রশেখর ও বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের ম্যানেজার সাব্বির খান।

ক্রিকেটারদের ছুটি প্রসঙ্গে বিসিবির মিডিয়া ম্যানেজার রাবীদ ইমাম বললেন, ‘খুব শর্ট ট্রিপ ছিল ব্রিস্টল থেকে টন্টন। যেহেতু এখানে ম্যাচের আগে ৩-৪ দিন বিরতি আছে। ট্রাভেলিং ডে’তে অনুশীলন ছিল না। যেহেতু কাল ট্রেনিং থেকেও ছাড় দেয়া হয়েছে, তাই খেলোয়াড়দের অনেককেই ছুটি দেয়া হয়েছে। এটা সম্পূর্ণ নিজস্ব, সময় তারা যেভাবে কাটাতে চায় কাটাতে পারবে। ১৪ জুন সবাই অনুশীলনে যোগ দেবে।’

‘কিছু কিছু জায়গায় ভেন্যুতে যাওয়ার ২ দিন পরই খেলা শুরু হয়ে যাচ্ছে। খেলোয়াড়দের ছোটখাটো কিছু চোট আছে, এই সময়ে সেটির রিকভারি ও মানসিকভাবে প্রশান্ত থাকার দরকার। এরপরে কিন্তু এরকম সময় পাওয়া যাবে না। সে কারণেই এ সুযোগটা নেয়া হয়েছে।’