চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

চেলসিকে হারিয়ে সুপার-চ্যাম্পিয়ন লিভারপুল

চেলসিকে টাইব্রেকারে হারিয়ে উয়েফা সুপার কাপের শিরোপা ঘরে তুলেছে লিভারপুল। উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও ইউরোপা কাপ চ্যাম্পিয়নের লড়াইয়ে টাইব্রেকারে ৫-৪ গোলে জিতেছে ইয়ূর্গেন ক্লপের অলরেড শিষ্যরা। লিভারপুলের ইতিহাসে যেটি চতুর্থ সুপার কাপ টাইটেল।

তুরস্কের ইস্তাম্বুলে বুধবার রাতে নির্ধারিত সময়ের খেলা ১-১ গোলে সমতায় ছিল। পরে অতিরিক্ত সময়েও সমতা (২-২) থাকলে সুপার কাপের ফাইনালে প্রথমবারের মতো অল-ইংলিশ লড়াই গড়ায় টাইব্রেকারে। সেখানে চেলসির শেষ শটটিতে দেয়াল হয়ে দাঁড়ান চ্যাম্পিয়ন্স লিগের বর্তমান শিরোপাধারী লিভারপুলের গোলরক্ষক আদ্রিয়ান।

বিজ্ঞাপন

ম্যাচের ৩৬ মিনিটে প্রথমে গোলের খাতা খুলেছিল চেলসিই। সেসময় ব্লুজদের এগিয়ে নেন অলিভিয়ের জিরুদ। বলের যোগানদাতা ক্রিস্টিয়ান পুলিসিচ। এই পুলিসিচের একটি গোল বিরতির আগে অফ-সাইডের খাড়ায় বাতিল হয়ে যায়।

বিজ্ঞাপন

মধ্যবিরতির পর ফিরেই সমতা টানে লিভারপুল। রবের্তো ফিরমিনো ৪৮ মিনিটে সাদিও মানেকে বল বাড়িয়েছিলেন, জাল খুঁজে নিতে ভুল করেননি এ ফরোয়ার্ড। এই গোলেই সমতা নিয়ে শেষ হয় নির্ধারিত সময়ের খেলা।

অতিরিক্ত সময়ের ৯৫ মিনিটে প্রথম গোলটি করে লিভারপুল। ফিরমিনোর যোগান দেয়া বলে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন সেনেগালিজ ফরোয়ার্ড মানে। ছয় মিনিট পরই স্পটকিকে সমতা ফেরান জর্জিনহো। আব্রাহামকে নিজ বক্সে ফাউল করেছিলেন অলরেডদের আদ্রিয়ান। সেই গোলে অতিরিক্ত সময়ের খেলাও থাকে সমতায়।

টাইব্রেকারে এসে নিজেদের পাঁচটি শটেই গোল করে বসে লিভারপুল। চেলসি টানা চারটি শটে জাল খুঁজে নেয়। তবে টামি আব্রাহামের নেয়া পঞ্চম শটটি জালের দেখা পায়নি, যাতে দেয়াল হয়ে দাঁড়ান গোলরক্ষক আদ্রিয়ান।

Bellow Post-Green View