চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

গোপালগঞ্জে অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্যকে কুপিয়ে হত্যা

সন্তানকে মারপিটের বিচার চেয়ে করা অভিযোগের সর্বশেষ খবর জেনে থানা থেকে বাড়ি ফেরার পথে গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে এক অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্যকে কুপিয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। নিহত ব্যক্তির নাম লিটু সরদার।

বৃহস্পতিবার ৩টায় গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানী থানার সাজাইল ইউনিয়নের সাজাইল বাজারের অদুরে গ্রামীন টাওয়ারের কাছে এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়ে নিহতের বড় ছেলে লিমন সরদার।

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ বিমানের গাড়ি চালক লিমন সরদার অভিযোগ করে বলেন, বৃহস্পতিবার সকাল নয়টার দিকে কাশিয়ানী থানার ওসি মো, আজিজুর রহমান এবং ওসি মো. ফিরোজ আমার বাবা লিটু সরদারকে মোবাইলে ফোন করে থানায় ডেকে নিয়ে যায়। কেন ডেকেছিলো তা জানা যায়নি। থানা থেকে বেরিয়ে আমার বাবা আনুমানিক বেলা ৩টার দিকে সাজাইল বাজারের অদুরে গ্রামীন টাওয়ারের কাছে পৌঁছালে এলাকার সন্ত্রাসী ইমরুল সরদার ও তার বাহিনীর সদস্য রাজু সরদার, কাহার সরদার, তাজ সরদার ও রোমান সরদারসহ আরো অনেকে আমার বাবাকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে হাত পায়ের রগ কটে আহত করে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

ঘটনার পরপরই গোপালগঞ্জের আড়াইশ বেড হাসপাতালে নিলে সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন বলে জানান লিমন।

লিমন আরো বলেন, আমার বাবাকে হত্যার ৩ দিন আগে সন্ত্রাসী ইমরুল তার বাহিনীর অন্যান্য সদস্যরা আমার ছোট ভাই লিংকন সরদারকে মারপিট করে।ঘটনার বিচার চেয়ে থানায় একটি অভিযোগ করা হয়। এ সময় ইমরুলের চাচা মোহাম্মদ সরদার ও বাচ্চু সরদার আমার বাবাকে দেখিয়ে দেয়ার হুমকি দেয়। অভিযোগের ৩ দিন পর বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে থানার ওসি মো, আজিজুর রহমান অথবা থানার ওসি মো, ফিরোজ আমার বাবাকে ফোন করে থানায় ডেকে নেয়।

নিহত লিটু সরদারের স্ত্রী ডলি সুলতানা বলেন: খুনিরা শুধু পেশাদার সন্ত্রাসীই নয়, তারা এলাকায় চুরি, ডাকতি সহ সব ধরনের অপরাধমুলক কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত জেনেও স্থানীয় প্রশাসন তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়নি।

জানা যায়, এ ঘটনায় পুলিশ এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।