চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

গরুর হাটকে টার্গেট করেছে জাল মুদ্রা কারবারীরা

ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে দেশে গরুর হাটকে টার্গেট করেছে একটি প্রতারক চক্র। তারা বিপুল পরিমান জাল টাকা তৈরি করছিল। আর ভারত থেকে গরু পাচারের সময় ভারতীয় অংশে লেনদেনকে টার্গেট করেছিলো জাল রুপি তৈরির আরও একটি চক্র।

বুধবার দিবাগত রাতে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ভারতীয় জাল রুপি ও টাকা তৈরির সরঞ্জামসহ ৭ জনকে আটক করেছে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

বিজ্ঞাপন

যাত্রাবাড়ির মাতুয়াইল এলাকা থেকে ২৬ লাখ জাল রুপির নোট ও রুপি তৈরির সরঞ্জামসহ তিনজনকে আটক করেছে ডিবির উত্তর বিভাগ।

আটকরা হলো- লিয়াকত হোসেন অরফে জাকির, শান্তা আক্তার ও মমতাজ বেগম। এ সময় তাদের কাছ থেকে জাল রুপি তৈরির কাজে ব্যবহৃত একটি ল্যাপটপ, একটি কালার প্রিন্টার, একটি লেমিনেশন মেশিন, জাল রুপি তৈরির বিপুল পরিমাণ কাগজ, বিভিন্ন কালারের কার্টিজ, সিকিউরিটি সিলসহ স্ক্রীন বোর্ড, গাম ও ফয়েল পেপার উদ্ধার করা হয়েছে।

ডিবি পূর্ব বিভাগের একটি টিম ফকিরাপুল এলাকা থেকে ৫০ লাখ জাল টাকাসহ মো. লাল মিয়া ও শহিদুল ইসলাম নামে দুইজনকে আটক করেছে।  ডিবি পশ্চিম বিভাগের একটি টিম সবুজবাগ এলাকা থেকে আবিদা সুলতানা ও আল আমিন নামে আরো দুজনকে আটক করেছে। এ সময় তাদের কাছ থেকে ৪০ লাখ ২০ হাজার টাকার জাল নোট উদ্ধার করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার দুপুরে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান ডিবির অতিরিক্ত কমিশনার আব্দুল বাতেন।

তিনি বলেন, ঈদুল আজহায় ভারত থেকে গরু আনার হিড়িক পড়ে যায়। আর এ সুযোগে ভারতীয় অংশে লেনদেনের টার্গেট করছিলো জাল রুপি তৈরির চক্রটি। সীমান্তবর্তি জেলা চাঁপাইননবাবগঞ্জের আগ্রহী ব্যবসায়ীদের চাহিদা অনুযায়ী জাল রুপি সরবরাহ করে আসছিলো।

আরেকটি জাল রুপি চক্র ভারতীয় প্রত্যন্ত অঞ্চলে সক্রিয় রয়েছে। তাদের কাছে জাল রুপিগুলো বিভিন্ন দামে পাচার করতো এই চক্রটি।

জাল টাকা তৈরির চক্রটির টার্গেট ছিলো আসন্ন ঈদকে সামনে রেখে গরুর হাট। বিপুর অর্থের লেনদেনের সুযোগে জাল টাকা ছড়িয়ে দেওয়ার টার্গেট করেছিলো চক্রটি।

জাল টাকা ও রুপির বিরুদ্ধে ডিবির এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

Bellow Post-Green View