চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

গণধর্ষণের সুষ্ঠু তদন্ত ও দায়ীদের শাস্তির দাবি

খুলনায় রেলওয়ে পুলিশের (জিআরপি) থানার ওসি মো: ওসমান গনি পাঠানসহ ৫ পুলিশের বিরুদ্ধে এক নারীকে গণধর্ষণের অভিযোগের সুষ্ঠু তদন্ত ও দায়ীদের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে নগরীর পিকচার প্যালেস মোড়ে নাগরিক সংগঠন ‘জনউদ্যোগে’র আয়োজনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। খুলনা বিএমএ’র সভাপতি ডা: শেখ বাহারুল আলমের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তৃতা করেন ‘জনউদ্যোগে’র সদস্য সচিব মহেন্দ্রনাথ সেন, ওয়াকার্স পার্টির মো: খালিদ হোসেন, সিপিবির এইচএম শাহাদাত হোসেন, নারী নেত্রী এ্যাড. শামীমা সুলতানা শিলু, ব্যবসায়ী আব্দুস সালাম ঢালীসহ বিভিন্ন স্বেচ্ছসেবী ও নাগরিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

বিজ্ঞাপন

এ সময় নেতৃবৃন্দ বলেন, রেলওয়ে পুলিশ রেলের যাত্রীদের নিরাপত্তার ব্যবস্থার পরিবর্তে একজন নারীকে থানায় আটকে রেখে ওসিসহ ৫ জন পুলিশ ধর্ষণ করেছে। এর চেয়ে আর জঘন্য কোন কাজ হতে পারে না। তাই ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত ও দায়ীদের কঠোর শাস্তির আওতায় আনা এবং অভিযুক্তদের দ্রুত বরখাস্তের দাবি জানান।

বিজ্ঞাপন

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার দুপুরে এক গৃহবধু ছেলেমেয়েসহ যশোর থেকে খুলনায় আসার পথে ফুলতলা এলাকা থেকে মোবাইল চোর সন্দেহে আটক করে খুলনা রেলওয়ে থানা-জিআরপি পুলিশ। পরে তাকে খুলনা জিআরপি থানায় নিয়ে এসে সারাদিন জিজ্ঞাসাবাদের পর রাতে থানায় আটকে রেখে ওই নারীকে ওসি ওসমান গনি, পুলিশ কর্মকর্তা নাজমুল ও গৌতম কুমার এবং কনষ্টেবল মিজান ও হারুন গণধর্ষণ করেছে বলে আদালতে অভিযোগ করে।

পরে আদালতের নির্দেশে সোমবার খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওই নারীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।

এদিকে, রেলওয়ে পুলিশের পাকশী জেলার পুলিশ সুপার নজরুল ইসলাম এ ঘটনার তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করে সাতদিনের মধ্যে প্রতিবেদন দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

Bellow Post-Green View