চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘খুব আনন্দ পেয়েছিলাম ঐ ম্যাচটা জিতে’

বাংলাদেশ দল যতবারই শ্রীলঙ্কায় যাবে উঠে আসবে শততম টেস্টের প্রসঙ্গ। দেশের বাইরে বাংলাদেশের সবশেষ টেস্ট জয় শ্রীলঙ্কায় এবং সেটি নিজেদের ১০০তম ম্যাচে। চার বছর পর আরেকবার লঙ্কায় টেস্ট সিরিজ খেলতে গিয়ে মেহেদী হাসান মিরাজ আবেগের ভেলায় আসছেন সে সুখস্মৃতি মনে করে।

‘যখন শততম টেস্ট ম্যাচ জিতেছিলাম খুব ভালো লেগেছিল। শ্রীলঙ্কার মাটিতে প্রথম টেস্ট জিতেছিলাম। ঐ মুহূর্তে অবশ্যই ভালো লেগেছিল। দলের সবার প্রতিজ্ঞা ছিল- আমরা ভালো ক্রিকেট খেলব এবং যে করেই হোক ম্যাচটা জিততে হবে। টিম মিটিংয়ে সবার ভেতর কমিটমেন্ট ছিল এবং বলছিল- আমাদের কিছু একটা করতে হবে, সর্বোচ্চটা দিতে হবে।’

বিজ্ঞাপন

‘যখন খেলা শুরু হয়েছিল তখন প্রত্যেকটা খেলোয়াড়ের কাছেই ওরকম মনোভাব ছিল। শরীরী ভাষাতেও এরকম ছিল যে আমাদের জিততে হবে ম্যাচটা। ভালো সময় খারাপ সময় পাঁচ দিনই ছিল। শেষ দিন যখন ভালো ক্রিকেট খেলতে পেরেছিলাম এবং দল জিতেছিল তখন খুব আনন্দ লেগেছিল সবার ভেতরে। খুব আনন্দ পেয়েছিলাম ঐ ম্যাচটা জিতে।’

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের টেস্ট জয় ওই একবারই। এবার দুই টেস্টের সিরিজে ক্যান্ডিতে মুখোমুখি হবে দুই দল। পাল্লেকেলে স্টেডিয়ামে প্রথম টেস্ট শুরু ২১ এপ্রিল। তার আগে শনিবার থেকে নিজেদের মধ্যে কলম্বোয় দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ দল।

লঙ্কানদের বিপক্ষে এমন সময় মাঠে নামতে হচ্ছে মুমিনুল হকের দলকে যখন কিনা টেস্টে হতাশার সাগরে নিমজ্জিত বাংলাদেশ। সাদা পোশাক, লাল বলের ক্রিকেটে বাংলাদেশ দলে সাম্প্রতিক ফর্ম খুবই বাজে। তবে লঙ্কায় অতীত সাফল্য কিছুটা আশাবাদী করছে মিরাজকে।

অফস্পিনিং অলরাউন্ডার বলেন, ‘এর আগে আমরা শ্রীলঙ্কায় যতবারই খেলেছি ভালো ক্রিকেট খেলেছি। নিদাহাস ট্রফি অল্পের জন্য জিততে পারিনি। শ্রীলঙ্কা সিরিজে ওয়ানডেতে ১-১ ছিল, টেস্টেও ওরা একটা জিতেছে আমরা একটা জিতেছি। আমরা ওদের চেয়ে পিছিয়ে নই, গত ৩-৪ বছর যেভাবে খেলেছি ওদের মাটিতে। যদি আগের মতো কমিটমেন্ট থাকে আর লড়াই দিতে পারি তাহলে আমরা ভালো কিছু করতে পারব।’

বিজ্ঞাপন