চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ক্রিকেটার শ্রীশান্তের বাড়িতে আগুন

ভারতীয় ক্রিকেটার শান্তাকুমারন শ্রীশান্তের বাড়িতে আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে। শনিবার সকালে আচমকাই আগুন লেগে যায় বাড়িতে। তবে এই ঘটনায় বাড়ির কোনো বাসিন্দার ক্ষয়-ক্ষতি হয়নি বলে জানিয়েছে সেদেশের মিডিয়া।

ভারতীয় মিডিয়া জানায়, সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বাড়ির হল ঘর এবং বেডরুম। শনিবার ভোররাত ২টো নাগাদ ঘটনাটি ঘটে কেরালা রাজ্যে এডাপল্লিতে অবস্থিত শ্রীশান্তের বাড়ির একতলায়।

বিজ্ঞাপন

আগুন লাগার সময়ে শ্রীশান্ত বাড়িতে ছিলেন না। সিনেমার শুটিংয়ের কাজে মুম্বাইয়ে ছিলেন। তিনি না থাকায় আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে পড়েন পরিবারের অন্যান্যরা। তবে কারও কোনো আঘাত লাগেনি বলেই মিডিয়ার কল্যাণে জানা যাচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

আগুন লাগার সময়ে একতলায় ছিলেন শ্রীশান্তের স্ত্রী-সন্তানরা এবং দুই পরিচারিকা। প্রতিবেশীদের থেকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে কাচের দরজা ভেঙে বাড়িরর বাসিন্দাদের উদ্ধার করে দমকল বাহিনী।

২০১৩ সালে আইপিএলে স্পটফিক্সিং কেলেঙ্কারিতে জড়ানোয় ক্রিকেট থেকে আজীবন নির্বাসিত হন শ্রীশান্ত। অভিযোগ ছিল, আইপিএলে রাজস্থান রয়্যালস এবং কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের ম্যাচে নিজের দ্বিতীয় ওভারে ১৪ রান দেয়ার বিনিময়ে ১০ লাখ রুপি পান। এই অভিযোগের স্বপক্ষে অনেক নথি পেশ করা হয়। যদিও তিনি নিজে আগাগোড়া অভিযোগ অস্বীকার করে এসেছেন।

ভারতীয় বোর্ডের কঠোর এই সিদ্ধান্ত নিয়ে একাধিকবার আদালতে আপিল করলেও এতদিন পর্যন্ত বিসিসিআই কোনোরকম নরম মনোভাব দেখায়নি। শেষপর্যন্ত বোর্ডেরই হস্তক্ষেপে উঠতে চলেছে শাস্তি। তার উপর থেকে আজীবন নির্বাসন উঠতে যাচ্ছে। আজীবন নির্বাসন কমে শ্রীশান্তকে সাত বছরের নির্বাসনের শাস্তির ঘোষণা করেছে বিসিসিআই।

তার শাস্তির মেয়াদ কমে সাত বছর হচ্ছে এবং তা উঠে যাচ্ছে ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের অম্বুডসম্যান এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যার অর্থ, চাইলে শ্রীশান্ত এরপর সবধরনের ক্রিকেটে ফিরতে পারেন। শ্রীশান্তের সঙ্গে শাস্তি পেয়েছিলেন অজিত চাণ্ডিলা এবং অঙ্কিত চৌহ্বানও।

Bellow Post-Green View