চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ক্যালগ্যারিতে নানা আয়োজনে কানাডার জন্মদিন উদযাপন

কানাডার ক্যালগ্যারিতে যথাযোগ্য মর্যাদায় ‘কানাডা-ডে’ ২০১৫ উদযাপন করেছে কানাডার বিভিন্ন সংগঠন এবং প্রবাসীরা বাংলাদেশীরা। দিবসটি উপলক্ষে তারা অংশগ্রহণ করেন নানা আয়োজনে।

কানাডা ১৮৬৭ সালে তার নিজস্ব গঠনতন্ত্রের মাধ্যমে স্বাধীন দেশে রূপ নেয়। ১৯৭১ সালে কানাডাই বিশ্বে প্রথম সরকারিভাবে মালটিকালচারালাইজেশনের ঘোষণা দেয়।

কানাডার প্রধানমন্ত্রী স্টিফেন হারপার এবং আলবাটার প্রিমিয়ার কানাডা ডে উপলক্ষে শুভেচ্ছা বাণী দিয়েছেন। স্থানীয় জেনেসিন্স সেন্টারে আইসিডিসি-কানাডা, ইউট্রান প্রজেক্ট ও বাংলাদেশ-কানাডা অ্যাসোসিয়েশন অব ক্যালগ্যারি যৌথ উদ্যোগে দিবসটি উদযাপন করেছে।

আয়োজনে ছিলো জাতীয় সংগীত পরিবেশনা, শিশু চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা, যেমন খুশি তেমন সাজ এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এই আয়োজনে বক্তৃতা করেন, কানাডার পার্লামেন্ট মেম্বার ডেভিন্ডর শোরী, আলবাটার হিউমেন রিসোর্স ও সার্ভিস মিনিস্টার ইরফান সাব্বির, বাংলাদেশ কানাডা এসোসিয়েশনের সভাপতি আব্দুল্লাহ রফিক, ব্যবসায়ী আলম খন্দকার, ইউট্রান প্রজেক্ট এর প্রেসিডেন্ট জয়ন্ত চৌধুরী, আইসিডিসির পরিচালক অ্যান্থনি জ্যাকব এবং অন্যরা। 

বিজ্ঞাপন

১৯৭১-সালে মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তীতে বাংলাদেশকে যে দেশগুলো স্বাধীন বাংলাদেশ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছিল কানাডা তাদের অন্যতম। সেই কানাডার জন্মদিনেই দেশটির উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি কামনা করেছেন প্রবাসী বাংলাদেশীরা। বাংলাদেশের আরো অনেক লোকের কর্মসংস্থানসহ অর্থনীতি উন্নয়নে কানাডা বড় ভূমিকা রাখবে এমন আশা করছেন সবাই। 

শেয়ার করুন: