চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কোচ চাইলে সাহায্য করতে পারবেন সাকিবকে

নিষেধাজ্ঞা না ওঠা পর্যন্ত বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) অবকাঠামো ব্যবহার করার সুযোগ নেই। এজন্য সাকিব আল হাসান অনুশীলন করতে বেছে নিয়েছেন বিকেএসপিকে। আগামী সপ্তাহ থেকে শুরু করবেন ব্যাট-বলের প্রস্তুতি। সেখানে তাকে সহায়তা করবেন ক্যারিয়ারের শুরুর দিকের কোচ নাজমুল আবেদীন ফাহিম ও মোহাম্মদ সালাউদ্দিন।

চাইলে ব্যক্তিগতভাবে জাতীয় দলের কোচরাও সাহায্য করতে পারবেন সাকিবকে। সংবাদমাধ্যমকে এমন তথ্য জানিয়েছেন বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান।

বিজ্ঞাপন

নিজেকে প্রস্তুত করার মিশনে বুধবার যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে ফিরেছেন সাকিব। সব ঠিক থাকলে দুই মাস পর টাইগার অলরাউন্ডার খেলতে পারবেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট। ২৮ অক্টোবর একবছর শাস্তির মেয়াদ শেষ হবে। বাকি একবছরের শাস্তি স্থগিত নিষেধাজ্ঞা। তাতে ওই দিনই উঠে যাওয়ার কথা আইসিসির বিধিনিষেধ।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

জুয়াড়ির কাছ থেকে ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পেয়ে তা আইসিসির অ্যান্টি করাপশন ইউনিটকে (আকসু) না জানানোর মাশুল দিয়ে চলেছেন সাকিব। ১০ মাস ধরে সবধরনের ক্রিকেটের বাইরে তিনি। আরও কিছুদিন অপেক্ষায় থাকতে হবে তাকে।

পাশাপাশি সতর্কও থাকতে হবে সাকিবকে। কেননা কোনো বিতর্কে নাম জড়ালে, খুব বেশি মাতামাতি হলে এবং তা আকসু কর্মকর্তাদের দৃষ্টিগোচর হলে সাকিবের উপর একবছর স্থগিত নিষেধাজ্ঞাও কার্যকর হতে পারে। সেজন্য দেশের সংবাদমাধ্যমকে সাকিবকে নিয়ে খবর প্রকাশে সতর্ক থাকতে অনুরোধ জানালেন বিসিবি পরিচালক আকরাম।

‘আমাদের গাইডলাইন হবে ২৯ (অক্টোবর) তারিখের পরে, তার আগে না (বিসিবির অধীনে অনুশীলন)। আপনারাও জানেন, আইসিসি থেকে নিষেধাজ্ঞা আছে এবং আপনাদের অনুরোধ করবো যেহেতু এখনো পর্যন্ত ওর সবকিছু ভালো আছে শেষের দিকে যেন কোনকিছু তার বিরুদ্ধে না যায় আকসুর নিয়মানুসারে। সেটা একটু সেক্রিফাইস করবেন আর আনুষ্ঠানিকভাবে আমরা তার সাথে কাজ করবো ২৯ তারিখ থেকে। তার আগে আমাদের কোচ যদি তাকে সাহায্য করতে চায়, সে কিন্তু ব্যক্তিগতভাবে গিয়ে করতে পারবে।’