চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

কীভাবে পরিষ্কার রাখবেন ল্যাপটপ-স্মার্টফোন

ল্যাপটপ, ট্যাব, স্মার্টফোন – আমাদের নিত্য প্রয়োজনীয় কিছু জিনিস, যা ছাড়া আমাদের সব কাজই যেনো আটকে যায়। তাই এদের নিতে হয় সঠিক যত্ন। ঠিকমতো পরিষ্কার না রাখলে এসব ডিভাইসের কর্মদক্ষতা কমে যেতে পারে। আবার ভুল উপায়ে পরিষ্কারের চেষ্টা করলে হতে পারে হিতে বিপরীত। অথচ বেশি ব্যবহার হয় বলে এগুলোই নোংরা হয় সবচেয়ে বেশি।

তাই আসুন জেনে নেই আমাদের এই দরকারি গ্যাজেটগুলো পরিষ্কার করার ছোট ছোট এবং কিছু সহজ উপায়:

ব্লোওয়ার


কি-বোর্ডের বোতামগুলোর নিচে আর অন্যান্য সূক্ষ্মতিসূক্ষ্ম জায়গা থেকে ধুলো সরিয়ে একেবারে সাফ করতে প্রয়োজন পড়বে একটি ব্লোওয়ারের। বাজারে সহজলভ্য এসব ব্লোওয়ার দিয়ে বাতাস পাম্প করে সহজেই কি-বোর্ডের মতো অংশের লুকোনো ময়লা পরিষ্কার করা সম্ভব।

মাইক্রোফাইবার ওয়াইপ


কম্পিউটার, মোবাইল ফোন বা ক্যামেরার দোকানে সহজেই পাওয়া যায় মাইক্রোফাইবারে তৈরি ছোট ছোট ক্লিনিং ওয়াইপ বা ইলেক্ট্রনিক্সের সরঞ্জাম মোছার কাপড়। বিশেষ এই কাপড়ে তৈরি ওয়াইপগুলো আপনার ল্যাপটপ, ট্যাব বা স্মার্টফোনটির গায়ে বারবার ব্যবহারের কারণে লেগে থাকা তেল-ময়লা এমনকি জীবাণু পরিষ্কারে খুবই সহায়ক।

শুধু সামান্য (খুবই সামান্য) পরিমাণ গরম পানিতে ভিজিয়ে ওয়াইপটি দিয়ে আপনার গ্যাজেট মুছে ফেলুন। এতে গ্যাজেটের গা পরিচ্ছন্ন ও জীবাণুমুক্ত হবে। আবার মাইক্রোফাইবার খুব মসৃণ হওয়ায় এটি আপনার ল্যাপটপ, ট্যাব বা ফোনের ডিসপ্লে মোছার জন্যও নিরাপদ। এতে ডিসপ্লেতে আঁচড় পড়ার ভয় থাকবে না।

বিজ্ঞাপন

ব্রাশ বা পুরোনো টুথব্রাশ


যন্ত্রপাতির ছোট ছোট জায়গা, যেখানে মোছার কাপড় ঢুকিয়ে পরিষ্কার করা যায় না, সেখানে কাজে লাগে ব্রাশ। ল্যাপটপের কিবোর্ডের ফাঁকফোকরে বিশেষভাবে তৈরি নরম চুলের ব্রাশগুলো বেশ সহজেই ঢুকে ধুলোবালি পরিষ্কার করতে পারে। এজন্য যে নতুন ব্রাশই কিনতে হবে এমন কোনো কথা নেই। পুরোনো মেকআপ ব্রাশও এ কাজে ব্যবহার করতে পারেন।

চাইলে পুরোনো নরম হয়ে যাওয়া টুথব্রাশও ল্যাপটপ, ফোন বা ট্যাব পরিষ্কারে কাজে লাগাতে পারেন। তবে এক্ষেত্রে পুরোনো টুথব্রাশই ব্যবহার করবেন, নতুন টুথব্রাশের ব্রিসল তুলনামূলক শক্ত ও ধারালো হয়, যা আপনার শখের দামি সরঞ্জামে আঁচড় ফেলে দিতে পারে। ব্রাশ দিয়ে ধুলো ঝেড়ে তা সাথে সাথে নরম সুতি কাপড় দিয়ে মুছে ফেলুন যেনো আবার ফাঁকে গিয়ে ঢুকতে না পারে।

কটন বাড ও টুথপিক


ব্লোওয়ার কিংবা ব্রাশও পৌঁছাতে পারে না এমন ছোট ছোট ফুটো বা পোর্টগুলোতে কটন বাড (মাথায় তুলো লাগানো কাঠি) অথবা টুথপিকের মাথায় তুলো বা টিস্যু পেপার পেঁচিয়ে সেসব ফুটো এবং পোর্টের ভেতর ঢুকিয়ে জমে থাকা ধুলো-ময়লা সাফ করতে পারেন সহজেই।

ইউএসবি বা মাইক্রো ইউএসবি পোর্টসহ ইন্টারনেট পোর্টের মতো জায়গাগুলো, যেখানে ময়লা জমে থাকার কারণে আপনার পেনড্রাইভ, চার্জার বা ইন্টারনেট সংযোগ ঠিকমতো কন্টাক্ট পায় না, অথবা হেডফোনের পোর্টে ধুলো জমে থাকায় হেডফোনে খরখরে শব্দ হয়, সেসব অংশে এ পদ্ধতি বেশ কার্যকর।

চাইলে জমে শক্ত হয়ে যাওয়া ময়লার জন্য কটন বাড বা টুথপিকের টিস্যুর ডগায় অল্প একটু আইসোপ্রোপাইল অ্যালকোহল লাগিয়ে নিতে পারেন। এতে নরম হয়ে ময়লা একেবারে উঠে যাবে।

বিজ্ঞাপন