চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনাভাইরাস: যুক্তরাষ্ট্রের একটি ভ্যাকসিন ট্রায়ালের সাফল্য দাবি

প্রাপ্তবয়স্ক স্বেচ্ছাসেবীদের অংশগ্রহণে কোভিড-১৯-এর চতুর্থ একটি ভ্যাকসিনের তৃতীয় ধাপের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের মধ্যবর্তী সময়ে সাফল্য পাওয়া গেছে।

শুক্রবার প্রকাশিত ফলাফলে একক ডোজ প্রয়োগে মানবদেহে শক্ত প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি হওয়ার প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে বলে জানিয়েছে ভ্যাকসিন আবিষ্কারক প্রতিষ্ঠান জেনসেন।

বিজ্ঞাপন

জনসন অ্যান্ড জনসনের আওতাধীন জেনসেন ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি উদ্ভাবিত কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনটির নাম এডি২৬.কোভ২.এস, যার একটি ডোজ প্রয়োগ করার পর করোনা উপসর্গ রোধ করতে সক্ষম কিনা তা যাচাই করতেই এই ট্রায়াল চালানো হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

বুধবার তারা চূড়ান্ত ধাপের ট্রায়াল শুরু করে। যেখানে যুক্তরাষ্ট্র ও বিশ্বের অন্যান্য দেশের প্রায় ২১৫টি গবেষণা কেন্দ্রে ৬০ হাজারের মতো স্বেচ্ছাসেবী এ পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছেন।

বিজ্ঞাপন

তবে করোনায় সবচেয়ে ঝুঁকিতে থাকা প্রবীণ ব্যক্তিরা এই ভ্যাকসিনের ফলে অল্প বয়সীদের মতো নিরাপদ থাকবে কিনা সেটা এখনো স্পষ্ট নয়। যুক্তরাষ্ট্রে করোনা ভ্যাকসিনের জন্য এটি বড় পরিসরে তৃতীয় ধাপের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের মধ্যে অন্যতম।

কোভিড-১৯ রোধে অন্য ভ্যাকসিনগুলোর দুই ডোজ দেয়ার দরকার হলেও জেনসেনের ভ্যাকসিনটি এক ডোজ প্রয়োগে কাজ সারার মতো করে তৈরি করা হচ্ছে।

নেচার সাময়িকীতে প্রকাশিত প্রিক্লিনিক্যাল গবেষণায় দেখা গেছে, জেনসেনের ভ্যাকসিন সার্স-কোভ-২ আক্রমণের ফলে ফুসফুস ও নাকে জীবাণু সংক্রমণের বিরুদ্ধে পুরোপুরি বা প্রায় পুরোপুরি সুরক্ষা দিয়ে থাকে।

জনসন অ্যান্ড জনসন বলছে যে, তারা বছরের শেষ বা পরবর্তী বছরের শুরুর দিকে তৃতীয় ধাপ ট্রায়ালের চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশ করতে পারবে।