চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

করোনাভাইরাস: ইটালির প্রধানমন্ত্রীর নতুন ঢেউয়ের সতর্কবার্তা

দোকান, স্কুল ও রেস্টুরেন্ট বন্ধ করার সিদ্ধান্ত

ইটালিতেও করোনাভাইরাসের নতুন ঢেউয়ের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। সেজন্য সেখানে দোকান, স্কুল ও রেস্টুরেন্ট বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। দেশটির প্রধানমন্ত্রী মারিও দ্রাঘি নতুন ঢেউয়ের সতর্কবার্তা দিয়েছেন।

ইস্টারের পরের তিনদিন ৩ থেকে ৫ এপ্রিল সেখানে পুরোপুরি শাটডাউন থাকবে। একবছর আগে ইটালিই প্রথম দেশব্যাপী লকডাউন জারি করে। আরও একবার দেশটি করোনাভাইরাসের প্রবল সংক্রমণের মুখোমুখি হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

এরই মধ্যে সেখানে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারিয়েছে ১ লাখ মানুষ। ইউরোপের মধ্যে যুক্তরাজ্যের পরে সেখানেই আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি।

বিজ্ঞাপন

এখন বিশ্বে একদিনে আক্রান্ত শনাক্ত ও মৃতের সংখ্যার দিক থেকে সবচেয়ে এগিয়ে রয়েছে ব্রাজিল।  একদিনে সেখানে আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে ৮৪ হাজার মানুষ আর প্রাণ হারিয়েছে ২ হাজার ১৫২ জন। দেশটিতে মোট আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে ১ কোটি ১৩ লাখের বেশি মানুষ আর প্রাণ হারিয়েছে ২ লাখ ৭৫ হাজারের বেশি।

তবে মোট আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যায় সবচেয়ে এগিয়ে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। একদিনে ৬৬ হাজার ৭০০ জন আক্রান্তে শনাক্তের মধ্যে দিয়ে সেখানে মোট আক্রান্ত শনাক্ত ২ কোটি ৯৯ লাখ মানুষ। একদিনে সেখানে প্রাণ হারিয়েছে ১ হাজার ৫০৫ জন, মোট প্রাণ হারিয়েছে ৫ লাখ ৪৫ হাজারের বেশি।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। চীনে করোনায় প্রথম রোগীর মৃত্যু হয় গত বছরের বছরের ৯ জানুয়ারি। ওই বছরের ১৩ জানুয়ারি চীনের বাইরে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় থাইল্যান্ডে। পরে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে করোনা ছড়িয়ে পড়ে।

করোনার প্রাদুর্ভাবের পরিপ্রেক্ষিতে গত বছরের ৩০ জানুয়ারি বৈশ্বিক স্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। গত বছরের ২ ফেব্রুয়ারি চীনের বাইরে করোনায় প্রথম কোনো রোগীর মৃত্যুর ঘটনা ঘটে ফিলিপিন্সে। এরপর ২০২০ সালের ১১ মার্চ করোনাকে বৈশ্বিক মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

বর্তমানে সারাবিশ্বে ১১ কোটি ৯৬ লাখ মানুষ এই ভাইরাসে আক্রান্ত আর প্রাণ হারিয়েছে ২৬ লাখ ৫১ হাজারের বেশি।