চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

এক আফগান বালিকার পোষা ময়নার গল্প

পাখিটি এখন ফরাসি রাষ্ট্রদূতের বাসভবনে

অবশেষে নিরাপদ আশ্রয় পেয়েছে আফগানিস্তান ছেড়ে যাওয়া সেই বালিকা আলিয়ার পোষা ময়না। পাখিটিকে এখন আবুধাবিতে ফরাসি রাষ্ট্রদূতের বাসভবনে রাখা হয়েছে। খুব শিগগিরই তাকে পৌঁছে দেওয়া হবে আলিয়ার কাছে।

দেশটিতে তালেবানরা ক্ষমতা দখলে নেওয়া পরপরই আলিয়া তার পরিবারের সাথে প্রথমে সংযুক্ত আরব আমিরাতে যায়। তারপর সেখান থেকে ফ্রান্সে যাওয়ার সময় ময়নাটিকে ফ্লাইটে তুলতে দেওয়া হয়নি স্বাস্থ্যঝুঁকির কথা বিবেচনা করে। অথচ ক্লান্ত আলিয়া বিপুল ঝক্কি সত্ত্বেও ময়নাটিকে হাতছাড়া করেনি সেদিন।

ময়নাটিকে সাথে নিতে না পেরে নীরবে কাঁদতে থাকে আলিয়া। তা দেখে ফরাসি রাষ্ট্রদূত জ্যাভিয়ার চাটেল তাকে কথা দেন, আমি জুজি নিরাপদে ও যত্নে রেখে একদিন তার কাছে ফিরিয়ে দেবেন।

বিজ্ঞাপন

বিবিসি জানায়, সেদিন জুজি নামের ময়নাটিকে নিয়ে যান চাটেল। এরপর ময়নাটির জন্য নতুন খাঁচা কেনেন। জুজি যাতে অন্য পাখিদের সঙ্গে মিশতে পারে, সে কারণে সকালে তাকে ঘরের বাইরেও নিয়ে যান।

চাটেল জানান, কয়েকদিনের প্রশিক্ষণের পর জুজি ফরাসি ভাষায় অন্যকে সম্বোধন করতে শিখেছে। মজার কথা হলো, জুজি ছেলে মানুষ পছন্দ করে না। সে আমাকে দেখলে ভ্রূকুটি করে, রাগতদৃষ্টিতে আমার দিকে তাকায়। আর নারীদের দেখলে আনন্দ প্রকাশ করে।

নিজের পোষা ময়নার এমন যত্ন দেখে খুবই খুশি আফগান বালিকা আলিয়া।

গত ১৫ আগস্ট তালেবানের হাতে রাজধানী কাবুলের পতন মধ্যে কয়েক দফায় ১ লাখ ২০ হাজারের বেশি আফগান নাগরিককে বিমানে করে বিভিন্ন দেশের নিরাপদ আশ্রয়ে নিয়ে যাওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন