চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

ইউটিউবে ২০ লাখ সাবস্ক্রাইবার: চ্যানেল আই’র উদযাপন

চ্যানেল আই অনলাইন ইউটিউবে চ্যানেল আইয়ের বিনোদন চ্যানেল ‘চ্যানেল আই টিভি’ সম্প্রতি ২০ লাখ ‘সাবস্ক্রাইবার’ ছাড়িয়েছে। ঘরোয়াভাবে ওই মাইলফলক অর্জন উদযাপন করেছে চ্যানেল আই। কেক কেটে উদযাপনের সময় চ্যানেল আই’র ইউটিউব টিমকে অভিনন্দন জানান চ্যানেল আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর।

সেসময় তিনি আশা প্রকাশ করেন, পর্দার মতো ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মেও সবসময় শীর্ষস্থান ধরে রাখবে চ্যানেল আই। ওই সময় উপস্থিত ছিলেন চ্যানেল আই’র প্রধান বার্তা সম্পাদক ও এডিটর, চ্যানেল আই অনলাইন জাহিদ নেওয়াজ খান; এডিটর (ডিজিটাল ও মাল্টিমিডিয়া, চ্যানেল আই অনলাইন) তৌফিক আহমেদ, আইটি ম্যানেজার সাব্বির হোসেন এবং ইউটিউব কো-অর্ডিনেটর আসাদ ইসলাম।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

ইউটিউবে চ্যানেল আই টিভি-তে চ্যানেল আইয়ের নাটক, টেলিফিল্ম, বিভিন্ন ধরণের বিনোদনমূলক অনুষ্ঠানসহ দর্শকপ্রিয় রিয়েলিটি শো’গুলোর প্রতিটি পর্ব ধারাবাহিকভাবে আপলোড করা হয়। উচ্চমানের অডিওভিজ্যুয়ালের এসব অনলাইন কন্টেন্ট দিন দিন টিভি চ্যানেলের পাশাপাশি ইউটিউবেও দর্শকশ্রোতাদের মাঝে নিজের অবস্থান তৈরি করে নিচ্ছে। এ কারণেই নিয়মিত বাড়ছে ইউটিউব পেজের ‘সাবস্ক্রাইবার’ বা গ্রাহক সংখ্যা।

২০ লাখ ‘সাবস্ক্রাইবার’ পেরিয়ে যাওয়ার মাইলফলক অর্জনে জাহিদ নেওয়াজ খান বলেন, চ্যানেল আই প্রথম ডিজিটাল বাংলা চ্যানেল। ডিজিটাল এ সময়ে এসে নিয়মিত পর্দার বাইরে চ্যানেল আইয়ের ডিজিটাল অপারেশন অন্য যেকোনো চ্যানেলের চেয়ে অনেক বেশি। ইউটিউবে আমাদের বিনোদন চ্যানেল অল্প সময়ের মধ্যে ২০ লাখ সাবস্ক্রাইবার পেয়েছে। আমরা আশা করছি, ৫০ লাখ সাবস্ক্রাইবারের মাইলফলকে পৌঁছাতে আমাদের বেশি সময় অপেক্ষা করতে হবে না।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, ইউটিউবে নিউজকেও আমরা সমান গুরুত্ব দিচ্ছি। সেখানে টেলিভিশনের নিয়মিত সংবাদগুলোর পাশাপাশি নেট জেনারেশনের উপযোগী করে আলাদা মাল্টিমিডিয়া কনটেন্ট দেওয়া হচ্ছে। লাইভ নিউজ ছাড়াও বড় ঘটনায় ইউটিউব-ফেসবুকে আমরা লাইভ করছি। নিকট ভবিষ্যতে সব ধরণের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আমাদের লাইভসহ সব ধরণের উপস্থিতি আরো অনেক বাড়বে।

তৌফিক আহমেদ বলেন, টেলিভিশনে প্রচারের পর কনটেন্টগুলো দর্শকদের কাছে আরও সহজে পৌঁছে দিতে ইউটিউবে প্রকাশ করি। চ্যানেল আই’র অনুষ্ঠানমালায় বৈচিত্র্য রাখার চেষ্টা করে সবসময়ই। টেলিভিশনের পাশাপাশি চ্যানেল আইয়ের ইউটিউবও এখন জনপ্রিয় হয়েছে উঠেছে।

আসাদ ইসলাম বলেন, “বাংলাদেশের যে এন্টারটেনমেন্ট টেলিভিশন চ্যানেলগুলো ইউটিউব নিয়ে কাজ করছে, সেগুলোর মধ্যে সবচেয়ে দ্রুত সময়ে ২০ লাখ সাবস্ক্রাইবার অর্জন করেছে চ্যানেল আই টিভি। ইউটিউব চ্যানেল অ্যানালিসিস সফটওয়্যার ‘সোশ্যাল ব্লেড’ এর তথ্য অনুসারে বাংলাদেশের ইউটিউব চ্যানেলগুলোর অবস্থান দেখলে দেখা যায়, টেলিভিশন চ্যানেলগুলোর ইউটিউব চ্যানেলের মধ্যে ‘চ্যানেল আই টিভি’ এক নম্বরে। এটা সম্ভব হয়েছে চ্যানেল আইয়ের ভাল কনটেন্ট আর সেই কন্টেন্টগুলোকে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে সঠিকভাবে উপস্থাপনের কারণে। দর্শকদের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ বাড়ানোর লক্ষ্য নিয়ে

২০১৭ সালের জুন মাসে আনুষ্ঠানিকভাবে ইউটিউবে যাত্রা শুরু করে চ্যানেল আই টিভি। চ্যানেল আই টিভির ইউটিউব লিঙ্ক