চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে ‘হাসিনা’র যাত্রা

বিশ্বের নামিদামি চলচ্চিত্র উৎসবে যাবে ‘হাসিনা: অ্যা ডটারস টেল’, সামনে আসছে আরো চমক…

গেল বছরের নভেম্বরেই দেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায় বঙ্গবন্ধুকন্যা ও দেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে নির্মিত ডকু-ড্রামা ‘হাসিনা: অ্যা ডটারস টেল’। এমনকি দেশের বেশকিছু টেলিভিশনেও একযোগে ডকু-ড্রামাটি প্রদর্শিত হয়। তবে এবার শুধু দেশে নয়, বিশ্বের নামিদামি চলচ্চিত্র উৎসবে নিয়ে যেতে প্রস্তুতি নিচ্ছেন এটির সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা।

খবরটি চ্যানেল আই অনলাইনকে নিশ্চিত করেছেন ‘হাসিনা: অ্যা ডটারস টেল’-এর পরিবেশক গাউসুল আলম শাওন। তিনি জানান, এরইমধ্যে আসন্ন ডারবান চলচ্চিত্র উৎসবের ৪০তম আসরে ডকু-ড্রামাটি নির্বাচিত হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

ডারবান চলচ্চিত্র উৎসবের অফিসিয়াল সাইটটি ভিজিট করে দেখা যায়, আগামী ১৮ জুলাই থেকে শুরু হচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকার গুরুত্বপূর্ণ এই চলচ্চিত্র উৎসবটি, যা চলবে ২৮ জুলাই পর্যন্ত।

শাওন জানান, ডারবান চলচ্চিত্র উৎসবে ‘হাসিনা’ চলচ্চিত্রটি দুইবার দেখানো হবে। উৎসবের তৃতীয় দিনে (২০ জুলাই) দুপুর আড়াইটায় এবং ২৪ জুলাই বিকাল চারটায় দেখানো হবে ছবিটি।

শাওন জানান, এই চলচ্চিত্র উৎসবে যোগ দিতে রেদওয়ান সিদ্দিক ববি, পিপলু খান ও তিনিসহ মোট চারজন যাওয়ার কথা রয়েছে। তবে এ বিষয়টি এখনো চূড়ান্ত হয়নি।

ডারবান চলচ্চিত্র উৎসব দিয়েই ‘হাসিনা’ ডকু-ড্রামাটির আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র আসরে যাত্রা শুরু হলো জানিয়ে শাওন বলেন, আমরা বিশ্বের আরো কিছু নামিদামি চলচ্চিত্র উৎসবে ‘হাসিনা: অ্যা ডটারস টেল’ দেখানোর আমন্ত্রণ পেয়েছি, ইচ্ছে করেই এগুলো এখনো জানায়নি। আগামিতে আরো কিছু চলচ্চিত্র উৎসবে এই ডকুফিল্মটি দেখানো হবে।

গেল বছরের সেপ্টেম্বরের শেষের দিকে সোশ্যাল মিডিয়ায় রীতিমত ভাইরাল হয় ‘হাসিনা: অ্যা ডটারস টেল’-এর ট্রেলার! দুই মিনিট ৪৮ সেকেন্ড ব্যাপ্তির ট্রেলারটি চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট মানুষ থেকে শুরু করে সংসদ সদস্য, মন্ত্রী ও রাজনীতিকরাও তাদের টুইটার, ফেসবুক আর ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করেন! সেদিন থেকেই চলচ্চিত্রটির জন্য দিন গুণছিলেন দেশের মানুষ।

পিপলু আর খানের পরিচালনায় ‘হাসিনা’ ডকু-ফিকশনের কাহিনী গড়ে উঠেছে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জীবনের দুঃখ-বিষাদ, ব্যক্তিগত আখ্যান, আর নৈকট্যের গল্পগুলো নিয়ে। যদিও নির্মাতা বলছেন, এটা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বায়োপিক নয়, বরং এটা বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার গল্প এবং তার বোন শেখ রেহানার গল্প।

Bellow Post-Green View