চ্যানেল আই অনলাইন
হৃদয়ে বাংলাদেশ প্রবাসেও বাংলাদেশ

‘আতঙ্কিত’ হওয়ার কিছু দেখছেন না টেন্ডুলকার

এবারের বিশ্বকাপে বরাবরের মতই হট-ফেভারিট ভারত। তারা কিনা মূল আসরে নামার আগে বিশাল ব্যবধানে হেরে বসলো নিউজিল্যান্ডের কাছে। যদিও ম্যাচটা ছিল গা-গরমের। কিন্তু বিশ্বযজ্ঞের দুয়ারে দাঁড়িয়ে ব্যাটে-বলে এমন বিপর্যয় অশনি সংকেত হিসেবে দেখে কোহলিদের সমালোচনা শুরু করেছেন ভারতীয়রা। চলছে কাঁটাছেড়াও।

সমর্থকদের এমন মাতম, এমন সমালোচনা দেখে বেশ বিরক্ত ভারতীয় কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকার। ২০১১ বিশ্বকাপ জয়ী তারকার মতে ভোরের সূর্য দেখে সন্ধ্যার পূর্বাভাস দেয়া মস্ত বড় বোকামি!

বিজ্ঞাপন

‘প্রস্তুতি ম্যাচ দেখে দলের পারফরম্যান্স বিবেচনা করা আমার শোভা পায় না। এটা একটা টুর্নামেন্ট। আর টুর্নামেন্টে যেকোনো সময় যেকোনো কিছু ঘটতে পারে। আপনারা যা নিয়ে এমন হৈচৈ করছেন, সেটা এখনো শুরুই হয়নি। আর প্রস্তুতি ম্যাচে দলগুলো ভিন্নভাবে প্রস্তুতি নেয়, সবাইকে বাজিয়ে দেখার চেষ্টা করে। বোলিংয়ে ভিন্নতা আনার চেষ্টা করে।’ মুম্বাই টি-টুয়েন্টি লিগের এক সংবাদ সম্মেলনে এমন করেই বলেছেন লিটল মাস্টার।

বিজ্ঞাপন

‘আমার মনে হয় দলকে সুস্থির হওয়ার সময় দিতে হবে। বিশ্বকাপের মতো বড় আসরে দুই-এক ম্যাচ এদিক সেদিক হতেই পারে। প্রস্তুতি ম্যাচে ভারত থিতু হওয়ার চেষ্টা করেছে। মূলপর্বে গেলেই খেলায় পরিবর্তন চলে আসবে। আমার মনে হয় না এনিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু আছে!’

সব প্রস্তুতি ম্যাচেই দলগুলো তাদের বিকল্প খেলোয়াড়ের অবস্থা দেখার জন্য মাঠে নামিয়ে দেয়। মূলত নিজেদের সেরা একাদশকে লুকিয়ে রাখতেই এই পরিকল্পনা থাকে দলগুলোর। সেটা করতে গিয়েই হার দেখেছে ভারত, শচীনের ভাবনা এমনই।

‘বেশিরভাগ প্রস্তুতি ম্যাচেই দলগুলো তাদের সেরা খেলোয়াড়দের খেলায় না। মূল বোলার আর ব্যাটসম্যানদের দেয়া হয় বিশ্রাম। আবার একই সময়ে বিকল্প খেলোয়াড়দের বাজিয়ে দেখা হয়। যেন প্রয়োজনীয় সময়ে এই খেলোয়াড়রা অস্বস্তি বোধ না করে, সেজন্যই এই ব্যবস্থা।’

Bellow Post-Green View